শীতে কুয়াশার সুযোগে পাচার রুখতে সতর্ক পুলিশ, বিএসএফ

71

রায়গঞ্জ: শীতে সীমান্ত দিয়ে পাচার রুখতে সতর্ক বিএসএফ ও পুলিশ। বছরের এই সময়ে কুয়াশাকে কাজে লাগিয়ে পাচারে সক্রিয় হয়ে ওঠে দুস্কৃতীরা। সেকথা মাথায় রেখেই বিএসএফ ও পুলিশের তরফে বাড়তি সক্রিয়তা নেওয়া হয়েছে। সম্প্রতি গরু পাচারের অভিযোগে দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে মালদা খন্ডের সীমান্তরক্ষী বাহিনী। বিএসএফ সূত্রে জানা গিয়েছে অভিযুক্তদের নাম জসীমুদ্দীন বাড়ি তাজপুর, সাদ্দাম হুসেন বাড়ি মালদাখন্ড। সম্প্রতি কাফ সিরাপ পাচার করতে গিয়েও এক যুবককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এছাড়াও এই সীমান্তবর্তী এলাকায় কাঁটাতার না থাকায় সেখানে তিনজন করে বিএসএফ জওয়ান মোতায়েন করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। শিফটিং হিসেবে সেখানে মোট নয় জনকে থাকার নির্দেশ দিয়েছে বিএসএফের কর্তারা। পাশাপাশি বিকেল পাঁচটার পর থেকে এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে। এবং বিকেল পাঁচটার পর থেকে সীমান্তবর্তী রাস্তায় গ্রামবাসীদের চলাফেরাও নিষিদ্ধ করে দেওয়া হয়েছে। নজরদারির জন্য থাকছে মোবাইল ভ্যান। তাজপুর ও মালদাখন্ড এলাকায় প্রায় ৩২ জন গরু পাচারকারীকে চিহ্নিত করা হয়েছে। এদেরকেও শীঘ্রই গ্রেপ্তার করা হবে বলে বিএসএফ সূত্রে জানা গিয়েছে।

উল্লেখ্য,উত্তর দিনাজপুর জেলার মালদাখন্ড, মাল্লিকপুর, বসতপুর, খুরকা, মাকরহাট, ভোপলা, ফুলবাড়ী,সনগাঁ, চৈনগর,মালোন, রাধিকাপুর।উত্তর দিনাজপুর জেলায় আন্তর্জাতিক সীমান্ত রয়েছে প্রায় ২২৭ কিলোমিটার। এই সীমান্তের সুযোগ নিয়েই বেশিরভাগ ক্ষেত্রে সক্রিয় হয়ে ওঠে পাচারকারীরা। মাদক থেকে শুরু করে কাশির সিরাপ, জালনোট থেকে গবাদিপশু পাচার করার মরিয়া চেষ্টা চলে এই সীমান্ত পেরিয়ে। শীত পড়তে ঘন কুয়াশা নামলে আরও বেশি সুবিধা হয় পাচারকারীদের। কুয়াশার চাদরের মধ্যে নিজেদের লুকিয়ে রেখে বিভিন্ন সাঙ্কেতিক শব্দ ব্যবহার করে পাচারের চেষ্টা করা হয়। একই সঙ্গে সক্রিয় হয়ে ওঠে অপরাধ চক্রও। উত্তর দিনাজপুর জেলা পুলিশ সুপার মহন্মদ সানা আকতার জানান, প্রতিটি থানাকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে নজরদারি আরও কঠোর করার জন্য। বিএসএফের সূত্রেও নজরদারী বাড়ানোর কথা স্বীকার করা হয়েছে।

- Advertisement -