কালীপুজো-দীপাবলি নিয়ে পুলিশের বৈঠক

326

শিলিগুড়ি: দুর্গাপুজোর পর কালীপুজো এবং দীপাবলি সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করা প্রশাসনের কাছে এখন বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে। কালীপুজো ও দীপাবলি সুষ্ঠুভাবে আয়োজনের বিষয়ে শনিবার সেবক রোডের একটি ভবনে শিলিগুড়ি পুলিশ কমিশনারেটের তরফে বৈঠক করা হয়। সেখানে পুলিশ ও প্রশাসনের আধিকারিকদের পাশাপাশি পুজো উদ্যোক্তারাও উপস্থিত ছিলেন।

করোনা সংক্রমণের জেরে বহু মানুষের শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যা দেখা দিচ্ছে। সেদিকে নজর রেখে এবছর দীপাবলিতে আতশবাজি নিষিদ্ধ করা হয়েছে। তবে অবৈধভাবে যাতে কোথাও বাজি মজুত কিংবা পোড়ানো না হয় সেটা রোখাই পুলিশের কাছে বড় চ্যালেঞ্জ। এবছর শিলিগুড়ি পুলিশ কমিশনারেট এলাকায় ৪১৭টি পুজোর অনুমতি দেওয়া হবে। নতুন পুজোর অনুমতি দেওয়ার ক্ষেত্রে এখনও পর্যন্ত রাজ্যের তরফে পুলিশের কাছে কোনও নির্দেশিকা এসে পৌছোয়নি বলে জানানো হয়েছে।

- Advertisement -

এবছর ১৫ থেকে ১৭ নভেম্বর পর্যন্ত প্রতিমা বিসর্জনের সময়সীমা বেঁধে দেওয়া হয়েছে। অনলাইনে ফর্ম ফিলআপের ক্ষেত্রে পুজো উদ্যোক্তাদের যাতে সমস্যা না হয়, সেজন্য পুলিশের তরফে হেল্পডেস্ক করা হয়েছে। দুর্গাপুজোর মতো কালীপুজো ও দীপাবলিতেও শহরের প্রধান রাস্তায় রাতে ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণের জন্য একাধিক বিধি নিষেধ আরোপ করা হচ্ছে। এবিষয়ে শিলিগুড়ির পুলিশ কমিশনার ত্রিপুরারী অথর্ব বলেন, ‘দুর্গাপুজোর মতো কালীপুজোতেও মানুষকে সচেতনভাবে চলার আবেদন জানাচ্ছি।‘