পায়ে পচন, রেলস্টেশন থেকে ব্যক্তিকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করল পুলিশ

69

রায়গঞ্জ: বাঁ পায়ের হাটু পর্যন্ত দগদগে ঘা, পুজ ও রক্ত গড়াচ্ছে। মাছির পিঁপড়ে সারি দিয়ে নেমেছে বছর ৩৫-এর ব্যক্তির শরীরের পাশে। চারিদিকে মানুষের ব্যস্ততা থাকা সত্ত্বেও কেউ ফিরেও তাকাচ্ছে না ওই ব্যক্তির দিকে। প্রায় পাঁচ দিন ধরে রায়গঞ্জ রেলস্টেশনের ২ নম্বর প্ল্যাটফর্মের পেছনে স্টেশন রোডে আবর্জনা ভরা রাস্তায় পড়েছিলেন তিনি। বৃহস্পতিবার পুলিশ গিয়ে ওই ব্যক্তিকে উদ্ধার করে রায়গঞ্জ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে ভর্তি করে।

সারা শরীর প্রায় অসার হয়ে পড়েছে। বাঁ হাটুর নীচের অংশে হার ভেদ করে মারাত্মক পচন ধরেছে। এক্ষেত্রে প্রয়োজন অস্ত্রপ্রচার। এতদিন রায়গঞ্জ মেডিকেল কলেজ পর্যন্ত নিয়ে যাওয়ার সময় বা সুযোগ কেউই বের করতে পারেনি। এমনকি উত্তর-পূর্ব সীমান্ত রেলওয়ের ক্যাম্পাসের মধ্যে ওই ব্যক্তিকে নিয়ে হেলদোল ছিল না রেল পুলিশেরও। তিনি কোথা থেকে এসেছেন বা নাম কি তা নিজেই বলতে পারেননি। এদিন স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার উদ্যোগে পুলিশ ওই ব্যক্তিকে উদ্ধার করলেও এখনও পর্যন্ত চিকিৎসা শুরু হয়নি।

- Advertisement -

নার্সদের বক্তব্য, পরিবার ছাড়া তাঁরা কি সিদ্ধান্ত নেবে? হাসপাতালের শল্য চিকিৎসক সঞ্জয় শেঠ ও রাজা বসাক বলেন, ‘ওই ব্যক্তির অঙ্গচ্ছেদ একান্তই জরুরি। নইলে সমস্ত শরীর ইনফেকশন হয়ে যাবে। পরিবারের কেউ না থাকায় এই সিদ্ধান্ত নেওয়া আমাদের পক্ষে সম্ভব হচ্ছে না।‘ রায়গঞ্জ মেডিকেল কলেজের নোডাল অফিসার বিপ্লব হালদার বলেন, ‘পরিবারের খোঁজ পেলে পরবর্তী পদক্ষেপ করা হবে।‘ রায়গঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত আইসি দীপঙ্কর বিশ্বাস বলেন, ‘রেলস্টেশন সংলগ্ন এলাকা থেকে এক ব্যক্তিকে উদ্ধার করে রায়গঞ্জ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তার বাঁ পা পচে গিয়েছে বলে জানতে পেরেছি। মেডিকেল কলেজ কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করে একটা ব্যবস্থা করতে হবে।‘