মাদক বিরোধী লড়াইয়ে পড়ুয়াদের পাশে চায় পুলিশ 

বীরপাড়া: শুক্রবার এলাকার একটি বেসরকারি স্কুলে বীরপাড়া থানার উদ্যোগে আন্তর্জাতিক মাদক বিরোধী দিবস পালিত হল।

এই উপলক্ষ্যে বিদ্যালয়ের আশপাশের কিছু পড়ুয়াকে স্কুলে আসার অনুমতি দেওয়া হয়। বীরপাড়া থানার ওসি পালজার ভুটিয়া বলেন, মাদকদ্রব্য পাচারচক্রের বিরুদ্ধে অভিযান চালানোর পাশাপাশি সমাজের সর্বস্তরে বিশেষ করে উঠতি প্রজন্মের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধি করতে হবে।

- Advertisement -

প্রসঙ্গত, বীরপাড়া সহ সন্নিহিত এলাকায় মাদকদ্রব্য ব্যবহারে ঝুঁকছে উঠতি প্রজন্মের একটা বড় অংশ। শুধু মাদকদ্রব্য ব্যবহার করা নয়, মাদক পাচারচক্রে জড়িয়ে পড়ছে কম বয়সী ছেলেরাও। সাধারণ মানুষের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধি না হলে শুধুমাত্র পাচারকারীদের বিরুদ্ধে অভিযান চালিয়ে যে মাদকমুক্ত সমাজ গড়া সম্ভব নয় তা মানছে পুলিশও। ওসি বলেন, সচেতনতা বাড়াতে এগিয়ে আসতে হবে সমাজের সর্বস্তরের মানুষকে। এক্ষেত্রে বিশেষ ভূমিকা পালন করতে পারে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলি।

বীরপাড়া সহ সন্নিহিত এলাকার অনেকেরই অভিযোগ, সিডেটিভ ট্যাবলেট, নিষিদ্ধ কাফসিরাপ, আঠার ওষুধ শুঁকে নেশা করা বর্তমানে এলাকায় সাধারণ ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। বীরপাড়ার অলিতে গলিতে মদের বোতল, কাফ সিরাপের বোতল আকছার পড়ে থাকতে দেখা যায়।

৪ মার্চ সহ দলমোরে ব্রাউন সুগার সহ বমাল গ্রেপ্তার হয় এক মহিলা পাচারকারীও। ৭ জুন বীরপাড়ায় ৩৪ হাজার সিডেটিভ ট্যাবলেট ও ৯২৮ বোতল নিষিদ্ধ কাফ সিরাপের বোতল বাজেয়াপ্ত করার পাশাপাশি এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করা হয়।

২১ জুন বীরপাড়ার অদূরে ডক্টরস কোঠিতে নাকা চেকিংয়ের সময় দলমোর গারোবস্তির ৩ নং লাইনের বাসিন্দা এক যুবককে ২৪০ বোতল নিষিদ্ধ কাফ সিরাপ সহ গ্রেপ্তার করে পুলিশ। ২৩ জুন বীরপাড়ায় এক পাচারকারি যুবককে গ্রেপ্তার করা হয়। বাজেয়াপ্ত করা হয় ৭৬৮০টি সিডেটিভ ট্যাবলেট ও ১৯০ বোতল নিষিদ্ধ কাফ সিরাপ।

ওসি বলেন, আমরা পাচারকারীদের বিরুদ্ধে অভিযান চালিয়ে যাচ্ছি। করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে স্কুল ও কলেজ পড়ুয়াদের মধ্যে মাদক বিরোধী সচেতনতা বাড়াতে বিভিন্ন পদক্ষেপ নেওয়া হবে।