অভিযুক্তকে ধরতে গিয়ে আক্রান্ত পুলিশকর্মী, গ্রেপ্তার ২

375

মুরতুজ আলম, সামসী: হরিশ্চন্দ্রপুর থানার অন্তর্গত দৌলতনগর গ্রাম পঞ্চায়েতে এক পরিবারের উপর প্রাণঘাতী হামলার অভিযুক্তদের ধরতে গিয়ে আক্রান্ত হল ভালুকা ফাঁড়ির পুলিশ। অভিযুক্তের বাড়ি গেলে পুলিশের ওপর হাঁসুয়া লাঠিসোটা নিয়ে আক্রমণ করে অভিযুক্ত ও তাঁর পরিবার। সেখান থেকে পালিয়ে কোনওরকমে প্রাণ বাঁচান পুলিশেরা। হাঁসুয়ার কোপে গুরুতরভাবে জখম হন সুব্রত কুমার মন্ডল নামের এক সিভিল ভলান্টিয়ার। ভালুকা পুলিশ ফাঁড়ির সাব-ইন্সপেক্টর নটোবর দাসের ওপর চলে এলোপাথাড়ি লাঠি। আক্রান্ত পুলিশ ও সিভিক ভলান্টিয়ারদের উদ্ধার করে তড়িঘড়ি ভালুকা প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হয়। নটোবর দাস ও সিভিক ভলান্টিয়ারের অবস্থা আশঙ্কাজনক। তাঁদের চাঁচল মহাকুমা সুপার স্পেশালিস্ট হাসপাতালে রেফার করা হয়েছে। ঘটনার জেরে এলাকায় উত্তেজনা রয়েছে। পুলিশি টহল চলছে ওই এলাকায়।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, ওই এলাকায় বসত জমির ওপর নির্মাণ কাজকে কেন্দ্র করে একই পরিবারের ৩ জনের ওপর ধারাল অস্ত্র দিয়ে হামলা চালায় একদল দুষ্কৃতি। তাঁরা বর্তমানে মালদা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। এই ঘটনায় ১২ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানানো হয়েছে। এদিন অভিযুক্তদের খোঁজে গিয়ে গুরুতরভাবে আক্রান্ত হন সাব ইন্সপেক্টর নটোবর দাস ও সিভিক ভলেন্টিয়ার সুব্রত কুমার মণ্ডল। এছাড়াও আরও কয়েকজন সিভিক ভলান্টিয়ার আক্রান্ত হয়েছেন বলে অভিযোগ।

- Advertisement -

এই ঘটনার নিন্দা করেছেন হরিশ্চন্দ্রপুরের বিধায়ক মোস্তাক আলম। তিনি দোষীদের উপযুক্ত শাস্তির দাবি জানিয়েছেন। চাঁচলের এসডিপিও সজলকান্তি বিশ্বাস বলেন, এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত দু’জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বাকিদের খোঁজ চলছে। কাউকে ছাড়া হবেনা।