বিডিও অফিসে পুলিশকর্মীর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার

141

রায়গঞ্জ: কর্তব্যরত অবস্থায় বিডিও অফিসে এক পুলিশকর্মীর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধারের ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়াল। ওই পুলিশকর্মীর নাম গোবিন্দ সোরেন (৫৯)। বাড়ি গাজোল থানার সৈয়েদপুর গ্রামে। রায়গঞ্জ থানার পুলিশের কনস্টেবল পদে কর্মরত ছিলেন তিনি। বৃহস্পতিবার রায়গঞ্জে বিডিও অফিসের শৌচালয় থেকে ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয়।

জানা গিয়েছে, সাতদিন আগে রায়গঞ্জের পূর্বশা পাড়ায় বিডিও অফিসে ভোটের ইভিএম মেশিন পাহারার দায়িত্ব দেওয়া হয় তাঁকে। তিনটি শিফটে মোট ১০ জন পুলিশকর্মীকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল। এদিন শৌচালয়ে গিয়ে দীর্ঘক্ষণ ফিরে না আসায় অপর কর্তব্যরত পুলিশকর্মী সেখানে গিয়ে খোঁজ করতেই ওই পুলিশকর্মীর ঝুলন্ত দেহ দেখতে পান। রায়গঞ্জ থানায় খবর দেওয়া হলে পুলিশ সেখানে পৌঁছে মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রায়গঞ্জ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। পুলিশ অফিসার, চিকিৎসকের উপস্থিতিতে মৃতদেহ ময়নাতদন্তের পর পরিবারের হাতে তুলে দেওয়া হয়।

- Advertisement -

মৃত পুলিশকর্মীর স্ত্রী সুমতি সোরেন জানান, গতকাল দুপুরে কিডনিতে ব্যথা ও মূত্রাশয়ে জ্বালা করায় বিডিও অফিস সংলগ্ন একটি বেসরকারি নার্সিংহোমে চিকিৎসককে দেখান তাঁর স্বামী। সেই চিকিৎসক ক্রিয়েটিন পরীক্ষার পাশাপাশি কিছু ওষুধ লিখে দেন। চিকিৎসকের বক্তব্য, তার দুটি কিডনি বিকল হয়ে যাওয়ায় তাঁকে ক্রিয়েটিন পরীক্ষা করতে দেওয়া হয়েছে। গতকাল রাতে ফোন মারফত স্ত্রীকে সমস্ত কিছু জানায় ওই পুলিশকর্মী। মানসিকভাবে তিনি ভেঙে পড়েছিলেন। এদিন সকালে তাঁর মৃত্যুর খবর পাওয়া যায়। এদিকে ভোটের মুখে কর্তব্যরত অবস্থায় একজন পুলিশকর্মীর মৃতদেহ উদ্ধারের ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। পুলিশ সুপার সুমিত কুমার জানান, একজন পুলিশকর্মীর মৃত্যু হয়েছে। তাঁরা ওই পরিবারের পাশে রয়েছেন। যাবতীয় সাহায্য করা হবে। পুলিশকর্মীর মৃত্যুতে এদিন রায়গঞ্জ থানা ও কর্ণজোড়া পুলিশ লাইনে শোকের ছায়া নেমে আসে।