আদিবাসী ছাত্রীর রহস্যমৃত্যু ঘিরে তুঙ্গে রাজনৈতিক তৎপরতা

97

পুরাতন মালদা: পুরাতন মালদার পোপড়া গ্রামে নির্মীয়মান কালভার্টের নীচ থেকে মৃতদেহ উদ্ধার হওয়া ছাত্রীর বাড়িতে গেল তৃণমূল ও বিজেপি নেতৃত্ব৷ রবিবার সকাল থেকেই নিহত ছাত্রীর বাড়িতে ভিড় জমান দু’দলের নেতা-কর্মীরা৷ তাঁরা প্রত্যেকেই ওই ছাত্রীর পরিবারের পাশে থাকার বার্তা দেন৷ একই সঙ্গে এই ঘটনায় যারা জড়িত, তাদের ফাঁসির দাবি তোলেন৷ তবে ইতিমধ্যে ঘটনায় জড়িত সন্দেহে দু’জনকে গ্রেপ্তার করেছে মালদা থানার পুলিশ৷

এদিন সকালে ভারতীর বাড়িতে যান পুরাতন মালদা পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি মৃণালিনী মণ্ডল মাইতি, সহ-সভাপতি হারেজ আলি, যাত্রাডাঙা গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান নুর হক সহ স্থানীয় তৃণমূল নেতা-কর্মীরা৷ এদিন হারেজ সাহেব বলেন, ‘ভারতীকে অবশ্যই খুন করা হয়েছে৷ তাঁর আত্মীয়রা খুনিদের ফাঁসির দাবি করেছে৷ আমরাও সেই দাবি করছি৷ পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে৷ পুলিশি তদন্তে আমাদের আস্থা রয়েছে৷’

- Advertisement -

হারেজ সাহেবরা গ্রাম থেকে বেরোনোর কিছুক্ষণ পর ওই বাড়িতে আসেন সংসদ, বিজেপির রাজ্য কিষাণ মোর্চার সভাপতি খগেন মুর্মু৷ তিনি বলেন, ‘ওই ছাত্রীকে ঠান্ডা মাথায় খুন করা হয়েছে৷ আপাতত দু’জন পুলিশের হাতে ধরা পড়েছে৷ আমরা নিশ্চিত, নিমাই হেমব্রমই এই ঘটনার নায়ক৷ তবে তার সঙ্গে আরও লোকজন রয়েছে৷ গ্রামবাসীরা দোষীদের কঠোর শাস্তি দাবি করেছে৷ আমরাও একই দাবি করছি৷ তবে এখন গোটা রাজ্যেই পুলিশ এমন ঘটনাকে অন্যদিকে ঘুরিয়ে দিতে চাইছে৷ এখানে যেন তেমন না হয়, তার জন্য আমরা পুলিশের কাছে আবেদন জানাচ্ছি৷’