রাজনৈতিক সংঘর্ষ অব্যাহত, জখম ১ তৃণমূল কর্মী

113

সিতাই: প্রার্থীর প্রচার সেরে বাড়ি ফেরার পথে গুরুতর জখম হলেন এক তৃণমূল কর্মী। ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার গভীর রাতে সিতাই বিধানসভার মাতালহাট গ্রাম পঞ্চায়েতের ভূতকুড়া গ্রামে। আহত ওই কর্মী দিনহাটা মহকুমা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তৃণমূলের অভিযোগ, বিজেপি আশ্রিত দুষ্কৃতীরা ঘটনাটি ঘটিয়েছে। যদিও বিজেপি এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে। ঘটনার তদন্তে নেমেছে দিনহাটা থানার পুলিশ। এদিন দিনের বেলায় সিতাইয়ের কেশরিবাড়ি গ্রামে রাজনৈতিক সংঘর্ষে এক বিজেপি কর্মী জখম হওয়ার ঘটনায় এলাকায় উত্তেজনা ছড়ায়। সেই ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই এদিন গভীর রাতে সিতাই বিধানসভার মাতালহাটের ভুতকুড়া গ্রামে এক তৃণমূল কর্মী গুরুতরভাবে জখম হন।

তৃণমূলের জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান তথা দলের জেলা সাধারণ সম্পাদক কৃষ্ণকান্ত বর্মন বলেন, ‘বৃহস্পতিবার রাতে আমাদের ৬/৪৬ নম্বর বুথের কয়েকজন দলীয় কর্মী প্রার্থীর হয়ে ভোটের প্রচার সেরে বাইকে চেপে বাড়ি ফিরছিলেন। রাস্তায় হঠাৎ বিজেপি আশ্রিত কিছু দুষ্কৃতী ওই কর্মীদের ওপর হামলা চালায়। দুষ্কৃতীদের মারে আমাদের এক কর্মীর মাথা ফেটে যায়। গুরুতর জখম অবস্থায় তাকে দিনহাটা মহকুমা হাসপাতালে ভর্তি করান হয়। সেখানে তিনি মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছেন। আসলে ভোটে তৃণমূলের জয় নিশ্চিত দেখে বিজেপি বহিরাগত দুষ্কৃতী আমদানি করে এলাকায় সন্ত্রাস শুরু করেছে।

- Advertisement -

বিজেপির জেলা সভাপতি মালতি রাভা বলেন, ‘এই অভিযোগ পুরোপুরি ভিত্তিহীন। বিজেপির বহিরাগত দুষ্কৃতী প্রয়োজন হয়না। তৃণমূলের নেতাদের পায়ের তলার মাটি সরে যাওয়ায় তাঁরা উলটোপালটা বলতে শুরু করেছেন। সিতাই বিধানসভায় তৃণমূলের গোষ্ঠীকোন্দল সকলেরই জানা। কাজেই এঘটনা যে তৃণমূলের গোষ্ঠী সংঘর্ষের ফল তা পরিষ্কার। কৌশলে বিজেপির ঘারে দোষ চাপিয়ে তৃণমূলের ভোটের ফায়দা তোলার চালাকি মানুষ বুঝে গিয়েছেন।