আদর্শ আচরণ বিধি লাগুর পরও সরেনি রাজনৈতিক ফেস্টুন-ব্যানার

115

রণজিৎ বিশ্বাস, রাজগঞ্জ: বিধানসভা নির্বাচন ঘোষণার পর তিন দিন পেরিয়ে গেলেও ডাবগ্রাম-ফুলবাড়ি বিধানসভা কেন্দ্রে সরকারি প্রকল্পের ফলক ও রাজনৈতিক দলগুলির ঝান্ডা, ব্যানার, ফেস্টুনের কোনও নড়নচড়ন হয়নি। জাতীয় সড়ক থেকে শুরু করে রাজ্য সড়ক সহ সর্বত্র রাজনৈতিক দলের ওই প্রচারমূলক ব্যানার ও পতাকা স্বস্থানে জ্বলজ্বল করছে। যদিও রাজগঞ্জের বিডিও এন সি শেরপা বলেন, আদর্শ আচরণবিধির দায়িত্বে থাকা টিম ব্লকের সর্বত্র ঘুরছে । যেখানেই রাজনৈতিক দলের পতাকা ও ফেস্টুন চোখে পড়ছে সেগুলি তুলে নিয়ে আসছে। তবে কেউ তাঁর জায়গায় পতাকা বা ফেস্টুন লাগানোর অনুমতি (এনওসি) দিয়ে থাকলে সেগুলি তোলা হচ্ছে না।

শুক্রবার বিধানসভা নির্বাচনের নির্ঘণ্ট ঘোষণা করেছে কেন্দ্রীয় নির্বাচন কমিশন। তারপর থেকেই আদর্শ আচরণবিধি শুরু। সরকারি জায়গা থেকে রাজনৈতিক দলগুলির ঝান্ডা সহ বিভিন্ন কর্মসূচির ব্যানার সরিয়ে নেওয়ার নিয়ম রয়েছে। এছাড়া সরকারি উন্নয়নমূলক ফলকগুলি সরিয়ে না নেওয়া হলেও অন্ততপক্ষে ঢেকে দেওয়ার কথা। কিন্তু তিন দিন পেড়িয়ে গেলেও একইস্থানে স্বমিমায় রয়েছে । সূত্রের খবর, ব্লক প্রশাসনের তরফে সব রাজনৈতিক দলগুলিকে দলীয় পতাকা-ফেস্টুন তুলে নেওয়ার কথা বলা হলেও কাজটি নির্বাচন দপ্তরের বলে দলগুলি এড়িয়ে যাচ্ছে।

- Advertisement -

রাজগঞ্জ ব্লক নির্বাচন দপ্তরের উদ্যোগে আদর্শ আচরণবিধির দায়িত্বে থাকা টিম রাজগঞ্জ বিধানসভা কেন্দ্রের বিভিন্ন স্থান থেকে রাজনৈতিক দলের পতাকা ও ফেস্টুন খুলতে দেখা গেলেও এখনও ব্লকের অনেক স্থানে সরকারি প্রকল্পের ফলক ঢেকে দেওয়া হয়নি। বিশেষ করে ডাবগ্রাম-ফুলবাড়ি বিধানসভা কেন্দ্রে কোনকিছুই বিন্দুমাত্র নড়নচড়ন হয়নি বলে অভিযোগ। এশিয়ান হাইওয়ের ডিভাইডারে বিজেপির রথযাত্রার ফেস্টুন থেকে শুরু করে দলীয় পতাকা, সিপিএম ও ডিওয়াইএফআইর পাতাকা সহ প্রচারমূলক ফেস্টুন, তৃণমূলের দলীয় পতাকা, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও গৌতম দেব সহ জনপ্রতিনিধিদের ছবি সহ ফেস্টুন আগের স্থানেই রয়ে গিয়েছে। বিভিন্ন স্থানে সরকারি প্রকল্পের ফলক সহ উদ্বোধন ও শিলান্যাসের ফলও ঢাকা হয়নি।