তুফানগঞ্জ, ১৪ জুনঃ নির্বাচনের পরবর্তী সময়েও তুফানগঞ্জে একের পর এক সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। ফের রাজনৈতিক অশান্তির জেরে উত্তপ্ত হয়ে উঠল তুফানগঞ্জ। বৃহস্পতিবার গভীর রাতে রলরামপুর এলাকায় তুফানগঞ্জ-১ পঞ্চায়েত সমিতির সহ সভাপতি ছামিউল ইসলামের বাড়িতে ভাঙচুর চালানোর অভিযোগ ওঠে বিজেপির বিরুদ্ধে। আবার, কোচবিহার থেকে দেওচড়াইয়ে নিজের বাড়িতে ফেরার সময় মারুগঞ্জ এলাকায় দেওচড়াই গ্রাম পঞ্চায়েতের তৃণমূলের অঞ্চল সভাপতি ফাহরুখ মন্ডলের উপর হামলা করা হয় বলে অভিযোগ উঠেছে। এক্ষেত্রেও অভিযুক্ত বিজেপি। পাশাপাশি অন্দরান ফুলবাড়ি-১ গ্রাম পঞ্চায়েতের পশ্চিম অন্দরান ফুলবাড়ি এলাকায় সঞ্জয় কর্মকার নামে এক তৃণমূল কর্মীর বাড়িতে হামলার অভিযোগ ওঠে। তাঁর বাড়িতে বিজেপির কর্মীরা ভাঙচুর করে বলে অভিযোগ। অন্যদিকে, নাককাটিগাছ গ্রাম পঞ্চায়েতের শিকারপুরে বৃহস্পতিবার রাতে তৃণমূল ও বিজেপি সংঘর্ষ হয়। এই ঘটনায় তৃণমূলের ছোট্টু রবিদাস আহত হয়ে তুফানগঞ্জ মহকুমা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। আহত বিজেপি কর্মী রানা বসাককে প্রাথমিক চিকিৎসার পর ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

চিলাখানা গ্রাম পঞ্চায়েতের বঙ্গীয় নব উন্মেষ প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির জেলা নেতৃত্ব অচিন্ত্য কুমার দাসকে লক্ষ্য করে বোমা ছোঁড়ার অভিযোগ ওঠে তৃণমূলের বিরুদ্ধে। যদিও ঘটনায় কেউ আহত হয়নি। তবে পরস্পরের বিরুদ্ধে ওঠা সমস্ত অভিযোগই অস্বীকার করেছে তৃণমূল ও বিজেপির নেতারা।