রায়গঞ্জ : দীর্ঘদিন ধরে সংস্কারের অভাবে বেহাল হয়ে পড়েছে রায়গঞ্জ ব্লকের কমলাবাড়ি অঞ্চলের উদয়পুর চণ্ডীতলা এলাকায় গুরুত্বপূর্ণ রাস্তা। এই রাস্তার পাশেই উত্তর দিনাজপুর জেলা পরিষদের সভাধিপতির বাড়ি। এই রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন কয়েক হাজার মানুষ যাতায়াত করেন। গ্রামবাসীদের অভিযোগ, একাধিকবার রাস্তা সংস্কারের দাবি জানিয়ে আন্দোলন করলেও এখনও পর্যন্ত রাস্তা মেরামতে প্রশাসন উদ্যোগী হয়নি। য়দিও জেলা পরিষদের দাবি, টেন্ডারের নোটিশ ঝুলিয়ে দেওয়া হয়েছে। মার্চ মাস নাগাদ কাজ শুরু হবে। গ্রামবাসীরা জেলা পরিষদের এই দাবি মানতে নারাজ। তাদের অভিযোগ, দীর্ঘ পাঁচ বছর ধরে টেন্ডার হয়ে যাওয়ার কথা শোনা যাচ্ছে। ওয়ার্কঅর্ডার পেলেই নাকি কাজ শুরু হবে। অথচ সেই কাজ এখনও শুরু হয়নি।

রায়গঞ্জের পশ্চিম উদয়পুরের চণ্ডীতলা থেকে আবদুলঘাটা মেলা প্রাঙ্গণ পর্যন্ত প্রায় আড়াই কিলোমিটার রাস্তাটি দীর্ঘদিন ধরে বেহাল। যাতায়াত করতে সমস্যায় পড়তে হচ্ছে স্থানীয় বাসিন্দাদের। প্রতিদিন ছোটখাটো দুর্ঘটনা ঘটছে। বাসিন্দা বাবলু বর্মন, মহম্মদ আকালু, দীপক দাসরা এই রাস্তা নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। গ্রামবাসীদের অভিযোগ, রাস্তা বলে এখানে কিছু নেই। প্রায় পুরোটাই খানাখন্দে ভরে গিয়েছে। ফলে স্কুল পড়ুয়া থেকে শুরু করে ব্যবসায়ী সকলকেই সমস্যায় পড়তে হচ্ছে। অথচ এই এলাকায় জেলা পরিষদের সভাধিপতি কবিতা বর্মনের বাড়ি।

- Advertisement -

আবদুলঘাটায় প্রতিবছর মেলা হয়। পাশাপাশি এখানে পিকনিক স্পট রয়েছে। পর্যটকরা এই রাস্তা দিয়ে আবদুলঘাটা, শিয়ালমণি পিকনিক স্পটে যান। কুলিক পক্ষীনিবাসে পিকনিক বন্ধ থাকায় সবাই এই এলাকায় ভিড় করেন। বেহাল রাস্তার জন্য পর্যটকদেরও সমস্যায় পড়তে হচ্ছে। এই এলাকায় রাতে টোটো পর্যন্ত আসতে চায় না। কেউ অসুস্থ হয়ে পড়লে বা গর্ভবতীদের নিয়ে সমস্যায় পড়েন বাসিন্দারা। তাই দ্রুত রাস্তা সংস্কারের দাবি তুলেছেন তাঁরা।

জেলা পরিষদের কর্মাধ্যক্ষ পূর্ণেন্দু দে বলেন, শীঘ্রই এই রাস্তার কাজ শুরু হবে। জেলা পরিষদের সদস্য স্বপন মুর্মুর তহবিল থেকে অর্থ বরাদ্দ হয়েছে। সভাধিপতি কবিতা বর্মন বলেন, এই রাস্তার জন্য ২৪ লক্ষ ২৭ হাজার টাকা বরাদ্দ হয়েছে। রাস্তার কাজ শুরু করা হবে। টেন্ডার ঝুলিয়ে দেওয়া হয়েছে। মার্চ মাসের মধ্যে কাজ শেষ করা হবে। তা না হলে টাকা ফেরত চলে যাবে।