দুয়ারে সরকার কর্মসূচিতে পড়ল ভোট বয়কটের পোস্টার

323

গয়েরকাটা: গয়েরকাটায় দুয়ারে সরকার কর্মসূচিতে ভোট বয়কটের পোস্টার পড়ল। ‘গয়েরকাটায় ব্লক অফিস স্থাপন না করা হলে আসন্ন বিধানসভা ভোট বয়কট করা হবে, সরকারের একপেশে সিদ্ধান্তকে ধিক্কার।’ গয়েরকাটায় ব্লক অফিস স্থাপন করা না হলে অসহযোগ আন্দোলন করা হবে,’ ইত্যাদি নানা ধরনের পোস্টারে ছেয়ে ফেলা হয় দুয়ারে সরকার কর্মসূচির চত্ত্বর। এই ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে প্রশাসনিক মহলে। রবিবার সকালেই বানারহাট থানার পুলিশ এসে পোস্টার গুলির ছবি তুলে নিয়ে যায়। ঘটনার খোঁজ নিতে আসেন গোয়েন্দা বিভাগের কর্মীরাও। পোস্টারগুলিতে প্রচারক হিসেবে নাম রয়েছে সাকোয়াঝোরা-১ যুব মঞ্চের।

উল্লেখ্য, রাজ্য সরকার কয়েক মাস আগেই ধূপগুড়ি ব্লককে একটি পৃথক ব্লক করার ঘোষনা করার পরই প্রস্তাবিত ব্লকের মধ্যে রাখা শালবাড়ি-১, শালবাড়ি-২ ও সাকোয়াঝোরা-১ গ্রাম পঞ্চায়েতের মানুষ গয়েরকাটায় ব্লক অফিস স্থাপনের দাবিতে আন্দোলন শুরু করে। কিন্তু সেই দাবিকে মান্যতা না দিয়ে রাজ্য সরকার ৩০ ডিসেম্বর নোটিফিকেশন জারি করে বানারহাট টিজি মৌজায় ব্লকের সদর দপ্তর স্থাপন করার ঘোষণা করেন। এতেই ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন এলাকাবাসীরা। এর প্রতিবাদে দফায় দফায় বৈঠকের পর শনিবার সন্ধ্যায় গয়েরকাটায় প্রতিবাদ মিছিল ও এশিয়ান হাইওয়ে অবরোধ করেন এলাকাবাসীরা। সেদিনও মিছিল থেকে ভোট বয়কটের হুমকি দেওয়া হয়।

- Advertisement -

এরপরই দুয়ারে সরকার কর্মসূচিতে ভোট বয়কটের পোস্টারে জোড় চাঞ্চল্য ছড়ায়। এই আন্দোলনে যুক্ত এলাকাবাসীর দাবি, বানারহাটে টিজি মৌজায় ব্লক অফিস স্থাপন হলে আমাদের অনেকটা দূরত্ব অতিক্রম করতে হবে। তা বর্তমান ধূপগুড়ি ব্লকের চেয়ে অনেক বেশি। তাহলে কেন আমাদের ভোগান্তি বাড়াচ্ছে সরকার? এই প্রশ্ন তুলেছেন তাঁরা। পাশাপাশি, সঠিকভাবে সমীক্ষা করা ছাড়া কিভাবে অফিসের স্থান নির্বাচন করা হল সেই প্রশ্নও তোলা হয়েছে এলাকাবাসীর তরফে। সাকোয়াঝোরা-১, শালবাড়ি-১ ও শালবাড়ি-২ গ্রাম পঞ্চায়েতের তরফে রেজুলেশন বানিয়ে গয়েরকাটায় ব্লক অফিস তৈরি করা এবং তা না হলে তাদের ধূপগুড়ি ব্লকের অন্তর্ভুক্ত হয়ে থাকার সিদ্ধান্ত জেলা শাসকের কাছে ইতিমধ্যে জমা পড়েছে। যদিও এ বিষয়ে ধূপগুড়ির বিধায়ক মিতালি রায় বলেন, ‘সরকার সিদ্ধান্ত নিয়ে নোটিফিকেশন জারি করেছে। এখন আর কিছু করার নেই।‘