সুনীল মণ্ডল ’গদ্দার’, পোস্টারে ছয়লাপ জৌগ্রাম

131

বর্ধমান: ভোল বদল করতেই এবার সাংসদ সুনীল মণ্ডলের বিরুদ্ধে পোস্টার পড়ল। বুধবার সকালে দেখা যায়, সুনীল মণ্ডল ’বেহায়া’, ’গদ্দার’-এমন পোস্টারে ছয়লাপ হয়ে গিয়েছে পূর্ব বর্ধমানের জামালপুর বিধানসভার জৌগ্রাম এলাকা। এর পাশাপাশি তিনি যাতে কোনওভাবেই আর তৃণমূলে জায়গা না পান, সেই দাবিতে এদিন সরব হন স্থানীয় তৃণমূল নেতাকর্মীরা।

বিধানসভা ভোটের আগে শুভেন্দু অধিকারীর হাত ধরে তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন বর্ধমান পূর্বের সাংসদ সুনীল মণ্ডল। মঙ্গলবার তিনি সাংবাদিকদের মুখোমুখি নন্দীগ্রামের বিধায়কের বিরুদ্ধেই ক্ষোভ উগরে দেন। তিনি বলেন, ‘শুভেন্দু তাঁকে বিজেপিতে যোগদান করানোর আগে যা যা প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন, তার একটিও রাখেননি।‘ তৃণমূল থেকে যাঁরা বিজেপিতে গিয়েছেন তাঁদের বিজেপি নেতারা সহ্য করতে পারেন না, এমন দাবিও করেন সুনীল মণ্ডল। এরপরই তাঁর তৃণমূলে ফেরার জল্পনা তৈরি হয়। আর জল্পনা তৈরি হতেই বর্ধমান পূর্ব লোকসভা কেন্দ্রের অধীন বিভিন্ন ব্লকের তূণমূল নেতারা সরব হয়েছেন। রায়না ১ ব্লক তৃণমূল সভাপতি বামদেব মণ্ডল বলেন,  ’সুনীলবাবুর নীতি বা আদর্শ বলে কিছু নেই। বিজেপিতে যোগ দিয়ে উনি জনসভা মঞ্চ থেকে যে ভাষায় তৃণমূল নেতাকর্মীদের হুঁশিয়ারি দিয়েছিলেন, তা কেউ ভোলেননি। ওই গদ্দারকে যাতে দলে কোনওভাবেই আর জায়গা দেওয়া না হয়, সেই আবেদন দলীয় নেতৃত্বের কাছে রাখা হবে।‘

- Advertisement -

অন্যদিকে, জামালপুরের তৃণমূল বিধায়ক অলোক মাঝি বলেন, ‘ভোটে বিজেপি হেরেছে বলেই এখন উনি বেসুরো গাইছেন।’ তৃণমূলের রাজ্যের মুখপাত্র দেবু টুডু বলেন, ’দলীয় কর্মী সমর্থকরা চাইছেন, সুনীল মণ্ডলের সাংসদ পদ খারিজ হোক। দলের তরফেও ওঁনার সাংসদ পদ খারিজের জন্য লোকসভার স্পিকারের কাছে আবেদন জানানা হয়েছে।‘ অন্যদিকে, সুনীলবাবু জানান, আত্মসম্মান বিসর্জন দিয়ে তিনি কিছু করতে চান না।