জিতে প্রীতির মুখে সঞ্জুর প্রশংসা

মুম্বই : তীরে এসে তরি ডোবা।

দুরন্ত লড়াইয়ের পরও মাত্র ৪ রানে হার। ১১৯ রানের ইনিংসের পরও সঞ্জু স্যামসনকে ফিরতে হয়েছে ট্র‌্যাজিক নায়ক হয়ে। অবশ্য রাজস্থান রয়্যালস হারলেও, অধিনায়কোচিত ইনিংসে সবার মন জিতে নিয়েছেন সঞ্জু। আইপিএল ইতিহাসে প্রথম অধিনায়ক, যিনি অভিষেকেই সেঞ্চুরিকারী। তবে রেকর্ড ছাপিয়ে রাজস্থান-অধিনায়কের মরিয়া প্রয়াস প্রশংসা কুড়িয়ে নিয়েছে।

- Advertisement -

সঞ্জু স্যামসন নিজেও মানছেন, তার আইপিএল কেরিয়ারের এটাই সেরা সেঞ্চুরি। ভুল বলেননি। আর যে লড়াই মন জিতে নিয়েছে প্রতিপক্ষেরও। পাঞ্জাব কিংস মালকিন প্রীতি জিন্টা থেকে দলের অধিনায়ক লোকেশ রাহুল যেমন। টুইটারে প্রীতি লিখেছেন, দুর্দান্ত ইনিংস। সঞ্জু স্যামসনের কথা আলাদা করে বলতে হয়। অসাধারণ একটা ম্যাচ। জয় দিয়ে শুরু করতে পেরে ভালো লাগছে। আমরা এবার নতুন নাম, নতুন জার্সি নিয়ে খেলছি। কিন্তু রক্তচাপ বাড়ানো ম্যাচ পরিস্থিতির ছবিটা বদলায়নি। আমাদের জন্য হয়তো পারফেক্ট ম্যাচ নয়। শেষটা অবশ্য একদম পারফেক্ট। অভিনন্দন লোকেশ রাহুল, দীপক হুডা ও দলের সবাইকে।

প্রথমে ব্যাটিং করে পাঞ্জাব কিংস ২২১/৬ স্কোরের জবাবে ২১৭-তে আটকে যায় রাজস্থান। দীপক হুডা ও লোকেশ রাহুলের ঝোড়ো হাফ সেঞ্চুরির প্রত্যাঘাতে সঞ্জুর ৬৩ বলে ১১৯। নিজের যে ইনিংস সম্পর্কে সঞ্জুর প্রতিক্রিয়া, আইপিএলে এটাই আমার সেরা ইনিংস। বোলারদের ওপর আগাগোড়া নিয়ন্ত্রণ রেখেছি। কিন্তু শেষ মুহূর্তে সব হিসেব বদলে গেল। দলকে এই পরিস্থিতি থেকে জেতাতে পারলে সবচেয়ে খুশি হতাম। ছয় মারা ছাড়া রাস্তা ছিল না। ভেবেছিলাম বলটা বাউন্ডারি টপকে যাবে। কিন্তু…। মনের অবস্থায় ভাষায় প্রকাশ করতে পারব না।

আক্ষেপ নিয়ে কোচ রাজস্থানের অন্যতম সাপোর্ট স্টাফ কুমার সাঙ্গাকারা বলেন, দুর্দান্তভাবে নিজের দায়িত্বটা সামলাল সঞ্জু। ম্যাচটা প্রায় শেষ করে ফেলেছিল। আর ৫-৬ গজ এদিক-ওদিক হলে শেষ বলে ছক্কা হয়। নিশ্চিতভাবে ওর ইনিংসটা দলের সবাইকে উৎসাহ জোগাবে।