নিজস্ব ভবন সত্ত্বেও ভাড়াবাড়িতে চলছে চিকিৎসা, ক্ষোভ সূর্যাপুরে

184

ডালখোলা : চাকুলিয়া ব্লকের উপস্বাস্থ্যকেন্দ্রের নিজস্ব ভবন নির্মাণের ১২ বছর পরেও ভাড়াবাড়িতে চিকিৎসাকেন্দ্রটি চলছে বলে অভিযোগ। ডালখোলা থানার সূর্যাপুর-২ গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার উত্তর কোনালে এমনভাবেই  ১২ বছর ধরে কেন্দ্রটি চলছে। এ নিয়ে সাধারণ মানুষ ক্ষোভ জানিয়েছেন। তাঁদের দাবি, উপস্বাস্থ্যকেন্দ্রের নিজস্ব ভবনেই ওই কেন্দ্রটি চালু করা হোক।

গোয়ালপোখর-২ ব্লকের সূর্যাপুর-২ গ্রাম পঞ্চায়ে এলাকার ঝিটকিয়া উপস্বাস্থ্যকেন্দ্রের ভবন তৈরির জন্য ২০০৮ সালে জমি দান করেন মহম্মদ তৌহিদ হুসেন। তিনি ৪ শতক জমি উপস্বাস্থ্যকেন্দ্র নির্মাণের জন্য কুড়ি টাকার স্ট্যাম্পে লিখে দেন। জমি পাওয়ার পরে কেন্দ্রের দ্বিতল ভবন নির্মাণ করা হয়। তবে নির্মাণ সম্পন্ন হলেও নতুন ওই ভবনে উপস্বাস্থ্যকেন্দ্রটি চালু হয়নি বলে অভিযোগ। নতুন ভবনের বদলে উপস্বাস্থ্যকেন্দ্রটি ঝিটকিয়া বাজার সংলগ্ন একটি বাড়িতে ভাড়া নিয়ে চলছে। পড়ে থেকে থেকে ওই ভবনটি কার্যত ভূতুড়ে বাড়িতে পরিণত হয়েছে।

- Advertisement -

সরকারি নিয়ম অনুযায়ী, উপস্বাস্থ্যকেন্দ্রে পরিষেবা দেবেন সেকেন্ড এএনএম। স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, কেন্দ্রটি চালু না হওয়ায় তাঁরা সরকারি সুযোগসুবিধা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। ২০০৮ সালে উপস্বাস্থ্যকেন্দ্র তৈরির জন্য জমির খোঁজ করেন তত্কালীন সূর্যাপুর-২ গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান মহম্মদ সারাফত হুসেন। তখন কোনাল গ্রামের বাসিন্দা তৌহিদ হুসেন জমিটি দান করেন। জমিদাতার দাবি, জমির বিনিময়ে তাঁকে সরকারি চাকরি বা টাকা দেওয়ার আশ্বাস দেওয়া হয়েছিল। তবে পরবর্তীকালে টাকা বা চাকরি কোনওটাই তিনি পাননি বলে তাঁর অভিযোগ। আড়াই বছরের মাথায় প্রধান পদ ছাড়তে হয় সারাফত হুসেনকে। প্রধান পদে আসীন হন মহম্মদ কামালউদ্দিন। তিনিও এই সমস্যাটির কোনও সুরাহা করতে পারেননি বলে দাবি জমিদাতা তৌহিদ হুসেনের।  ২০১৩ সালে প্রধান নির্বাচিত হন মুখী হেমব্রম। সেই সময় সমস্যাটি মেটাতে বিডিও অফিসে ডাক পড়ে জমিদাতার। তবে অসুস্থ থাকার ফলে তৌহিদ হুসেন সেখানে য়েতে পারেন নি। তারপর থেকে এ যাবৎ ওই সমস্যার কোনও সুরাহা হয়নি বলে জানান তিনি। জমিদাতা মহম্মদ তৌহিদ হুসেন বলেন, বর্তমানে ওই জমির বাজার মূল্য অনেক। সরকার কেন্দ্রটি চালু না করলে আমাকে জমি ফেরত দিক।

সূর্যাপুর-২ গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রাক্তন উপপ্রধান রামপ্রসাদ বাড়ুই বলেন, স্বাস্থ্যকেন্দ্রটি নতুন ভবনে চালু হলে স্থানীয় মানুষ উপকৃত হবেন। সূর্যাপুর-২ গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান সঞ্জিতকুমার ঢালি বলেন, উপস্বাস্থ্যকেন্দ্রটি বন্ধ রয়েছে, এমন খবর জানা নেই। কেন বন্ধ রয়েছে বিষয়টি খোঁজ নিয়ে জানাব। ২০০৮ সালের চাকুলিয়া ব্লকের তৎকালীন ব্লক স্বাস্থ্য আধিকারিক তথা বর্তমানে কানকি প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রের চিকিত্সক রণেন্দ্রকুমার দাস বলেন, পঞ্চায়েতের উদ্যোগেই ঝিটকিয়া উপস্বাস্থ্যকেন্দ্র সহ আরও কিছু কেন্দ্র নির্মাণ করা হয়েছিল। তবে কেন তা চালু হয়নি আমার জানা নেই। এই ব্যাপারে চাকুলিয়া ব্লক স্বাস্থ্যকেন্দ্রের বর্তমান ব্লক স্বাস্থ্য আধিকারিক অমলেন্দু রায়কে একাধিকবার ফোন করা হলেও তিনি ফোন না ধরায় তাঁর বক্তব্য পাওয়া যায়নি।