স্ত্রীর মর্যাদার দাবিতে প্রাথমিক শিক্ষকের বাড়ির সামনে ধর্নায় মহিলা

205

পারডুবি: স্ত্রীর মর্যাদার দাবিতে প্রাথমিক শিক্ষকের বাড়ির সামনে রবিবার রাত থেকে ধর্নায় মহিলা। ঘটনা মাথাভাঙ্গা ২ ব্লকের পারডুবি গ্রাম পঞ্চায়েতের এগারোমাইল এলাকার। তবে সোমবার স্থানীয় প্রশাসনের সহযোগিতায় ধর্না উঠে যায়।
ওই মহিলার অভিযোগ, প্রায় তিন বছর আগে পেশায় শিক্ষক বাপি সরকারের সঙ্গে তাঁর রেজেস্ট্রি করে বিয়ে হয়। সেই সময় বাপি বলেছিলেন তাঁদের সামাজিক বিয়ে হয়নি বলে তাঁরা একসঙ্গে থাকতে পারবেন না। তারপর থেকে ওই মহিলা বাপের বাড়িতেই থাকত। এমনকি এর আগে সে সংসার করতে শশুড়বাড়িতে গেলে তাঁকে আটকে রাখা হয় বলে অভিযোগ।
এদিকে বাপি সরকার জানান, রেজেস্ট্রি বিয়ে বাদ দিয়ে মহিলার সমস্ত অভিযোগ ভিত্তিহীন। ঘটক মারফত বিয়ে ঠিক হয়েছিল। দিনক্ষণ ঠিক করে বিয়ের প্রস্তুতিও শুরু করেছিলেন তাঁরা। কিন্তু এরপরেই মেয়ের বাড়ি থেকে তাঁকে বলা হয় মাথাভাঙ্গা শহরে জমি কিনে তিনতলা বাড়ি করতে হবে। না হলে বিয়ে হবে না। তারপর থেকে আলাদাই থাকতেন তাঁরা। তাঁদের মধ্যে কোনও সম্পর্কও হয়নি। বরং মহিলার তরফে তাঁকে প্রাণনাশের হুমকিও দেওয়া হয়েছিল। এদিন তিনি যখন বাড়িতে ছিলেন না সেই সময়ই ওই মহিলা দলবল নিয়ে এসে বাড়ির সামনে ধর্নায় বসেন বলে অভিযোগ তাঁর। শিক্ষকের পরিবারের আরও অভিযোগ এদিন তাঁদের পরিবারে দুই সদস্যকে ওই মহিলার দলবল মরধর করে। আহত অবস্থায় প্রথমে তাঁদের মাথাভাঙ্গা মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে তাঁদের কোচবিহারে রেফার করা হয় বলে জানান তাঁরা। যদিও সমস্ত অভিযোগ সেই মহিলা অস্বীকার করেছেন। উলটে তাঁর উপরেই অত্যাচার করা হয় বলে পালটা অভিযোগ তোলেন তিনি। খবর পেয়ে রবিবার রাতেই ঘটনাস্থলে আসে ঘোকসাডাঙ্গা থানার পুলিশ। তারা পরিস্থিতি খতিয়ে দেখে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে ।