হার মেনেছেন দিদি, রাজ্যে প্রচারে এসে দাবি প্রধানমন্ত্রীর

87

পোর্টাল ডেস্ক: নন্দীগ্রামে হার মেনে নিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।  দক্ষিণ ২৪ পরগনার মথুরাপুরে জনসভা থেকে কার্যত ভবিয্যৎবাণীর ঢঙে মুখ্যমন্ত্রীর ভোটভাগ্য ঘোষণা করে দিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এদিন হাওড়ার উলুবেড়িয়াতেও একটি জনসভা করেন মোদি। আর দুই সভাতেই মোদী টেনে নিয়ে আসেন ‘হট সিট’ নন্দীগ্রামের প্রসঙ্গ। তিনি বলেন, ‘বাংলা যা চাইছে সেটাই হয়েছে নন্দীগ্রামে। দিদি,  প্রথমে ভবানীপুর ছেড়ে নন্দীগ্রামে গিয়েছিলেন। পরে বুঝলেন সেটা ভুল করেছি।’ যদিও নন্দীগ্রামে ভোটের পরে মমতা ও শুভেন্দু দু জনই দাবি করেছেন, জয় নিশ্চিত। মোদীর বক্তব্যে পরিস্কার, নন্দীগ্রামে বিজেপি-র জয় নিয়ে তিনি নিশ্চিত। দ্বিতীয় দফার ভোটের দিনেই বাংলা দখলের প্রত্যয়ও বৃহস্পতিবার ধরা পড়েছে মোদীর গলায়। তাঁর দাবি, দিদিকে দেখলেই সব বুঝে যাবেন। দিদিই ওপিনিয়ন পোল, দিদিই এক্সিট পোল। ওঁর চোখ-মুখ, হাব-ভাবেই সব পরিষ্কার বোঝা যাচ্ছে।

প্রধানমন্ত্রী এদিন দাবি করেন,  বাংলায় ‘আসল পরিবর্তন’-এর জোর হাওয়া বইছে। একথা প্রথম দফাতেই বোঝা গিয়েছে। বিজেপি ২০০-র বেশি আসনে জিতবে বলেও দাবি করেন তিনি। তবে বাংলায় তৃতীয় দফার ভোট প্রচারে এসে রাজ্যে ‘সিন্ডিকেটের সরকার’ চলছে বলে আক্রমণ করেন তিনি। মুখ্যমন্ত্রীকে খোঁচা দিয়ে তাঁর কটাক্ষ, তিনি শুধু বাধা দিতেই জানেন। শিল্পকে ধ্বংস করেছেন। ১০ বছর কোনও পরিকল্পনা ছাড়াই সরকার চালিয়েছেন। কিন্তু একবিংশ শতকের বাংলায় ওই সরকার চলবে না। বাংলার দরকার এক দূরদৃষ্টিসম্পন্ন সরকার, যারা পরিকল্পনা করে বাংলার উন্নতির লক্ষ্যে কাজ করবে।

- Advertisement -