অর্থনীতিবিদদের সঙ্গে বৈঠকে বসবেন প্রধানমন্ত্রী

218
সংগৃহীত

নয়াদিল্লি: করোনার ধাক্কায় কার্যত মুখ থুবড়ে পড়েছিল উৎপাদন শিল্প। পরিষেবা শিল্পের ওপর সংক্রমণের গভীর প্রভাব পড়ে। আনলক পর্বে ধীরে ধীরে ঘুরে দাঁড়ানোর ইঙ্গিত দিচ্ছে অর্থনীতি। ডিসেম্বরে লক্ষ কোটি টাকার বেশি জিএসটি আদায় সেদিকে ইঙ্গিত করছে। যদিও সিএমআইয়ের পরিসংখ্যান বলছে, ডিসেম্বরে বেকারত্বের হার বেড়েছে। নভেম্বরের ৬.৫ শতাংশকে ছাপিয়ে গতমাসে তা ৯.০৬ শতাংশে পৌঁছে গিয়েছে। অর্থনীতির হাল ফেরাতে আগামী বাজেটকে পাখির চোখ করেছে কেন্দ্র। ৮ জানুয়ারি দেশের শীর্ষ অর্থনীতিবিদদের সঙ্গে বৈঠকে বসবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। সেখানে বাজেটের রূপরেখা নিয়ে আলোচনা হওয়ার কথা। বৈঠকের আযোজক নীতি আয়োগ। নীতি আয়োগের ভাইস চেয়ারম্যান রাজীব কুমার ও সিইও অমিতাভ কান্ত আলোচনায় অংশ নেবেন।

ছন্দে ফেরার ইঙ্গিত দিলেও চলতি অর্থবর্ষে ভারতীয় অর্থনীতি সামগ্রিকভাবে সাড়ে ৭ শতাংশ সংকুচিত হতে পারে বলে রিজার্ভ ব্যাংক পূর্বাভাস জারি করেছে। আন্তর্জাতিক অর্থভাণ্ডার ও বিশ্ব ব্যাংকের মূল্যায়ন অনুযায়ী, সংকোচনের পরিমাণ হতে পারে য়থাক্রমে ১০.৩ শতাংশ বা ৯.৬ শতাংশ। অর্থনীতিবিদদের একাংশের মতে, আর্থিক সংস্থাগুলি জিডিপি বৃদ্ধির বার্ষিক হার শূন্যের নীচে নামার পূর্বাভাস জারি করলেও ভারতের অর্থনীতি দ্রুত ঘুরে দাঁড়ানোর সম্ভাবনা রয়েছে। জিডিপি বৃদ্ধির ক্ষেত্রে উৎপাদন শিল্পের ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ। নভেম্বর থেকে এই ক্ষেত্রটি ভালো ফল করছে। প্রথমসারির উৎপাদন সংস্থাগুলির শেয়ার দর ওপরের দিকে রয়েছে। আর্থিক বৃদ্ধিতে ২০২১-২২ অর্থবর্ষ গুরুত্বপূর্ণ ভমিকা নিতে চলেছে। সেদিক থেকে আগামী বাজেটের বাড়তি তাৎপর্য রয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে আর্থিক পুনরুত্থানের কোন রূপরেখা অর্থনীতিবিদরা পেশ করেন এখন সেদিকে তাকিয়ে পর্যবেক্ষক মহল।

- Advertisement -