জলপাইগুড়ি, ২ ডিসেম্বরঃ আদালতের হাজতে বিচারাধীন বন্দির আত্মহত্যার চেষ্টায় চাঞ্চল্য ছড়ালো। সোমবার দুপুরে ঘটনাটি ঘটে জলপাইগুড়ি জেলা আদালতের হাজতে। ওই বিচারাধীন বন্দি মাদক পাচারের মামলায় অভিযুক্ত। গত প্রায় দেড় বছর ধরে বিচারাধীন বন্দি হিসেবে জলপাইগুড়ি কেন্দ্রীয় সংশোধনাগারে রয়েছে। এদিন আদালতে তার মামলার শুনানি ছিল। তাই তাকে সংশোধনাগার থেকে আদালতে নিয়ে যাওয়া হয়। অন্যান্য অভিযুক্তদের সঙ্গে আদালতের হাজতে পুলিশি নিরাপত্তায় রাখা হয় তাকে। দুপুরে তার শুনানির জন্য আদালতে নিয়ে যাওয়া হয়। শুনানির পর তাকে পুলিশি নিরাপত্তায় পুনরায় হাজতে ফিরিয়ে নিয়ে আসা হয়। জানা গিয়েছে, হাজতে আসার পর সেখানের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা পুলিশ কর্মীদের মারধর এবং গালিগালাজ করতে থাকে সে। অভিযোগ, পুলিশের দৃষ্টি এড়িয়ে পকেট থেকে একটি শিশি বের করে বিষ খেয়ে নেয়। এরপরই সেখানে উপস্থিত পুলিশ কর্মীরা ওই ব্যক্তিকে উদ্ধার করে জলপাইগুড়ি সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে নিয়ে যায়। আদালতের হাজতে থাকা ওই ব্যক্তির কাছে কিভাবে বিষের শিশি এলো তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে বিভিন্ন মহলে। জলপাইগুড়ি বার অ্যাসোশিয়েশনের সম্পাদক অভিজিৎ সরকার বলেন, কিভাবে ওই ব্যক্তির কাছে বিষের শিশি এলো তা পুলিশকে তদন্ত করে দেখতে হবে। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।