আগামীকাল থেকে গ্রিন জোনে বাস চালাতে বদ্ধপরিকর রাজ্য সরকার

350
প্রতীকী ছবি।

স্বরূপ বিশ্বাস, কলকাতা: রাজ্য সরকারের শত প্রস্তাবেও বাস চালাতে চাইছেন না বেসরকারি বাসমালিকেরা। এদিকে দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে শুক্রবার থেকে সরকারি বাস নামাচ্ছে সরকার। তবে ওইসব জেলায় বেসরকারি বাসের পথে নামা নিয়ে সংশয় থেকেই গিয়েছে। পরিবহণ দপ্তর সূত্রে খবর, কুড়ি জন যাত্রী নেওয়ার সরকারি প্রস্তাব নিয়ে জেলাস্তরে প্রশাসন ও বাস মালিকদের সঙ্গে আলোচনা চলছে। কিছু জেলায় বেসরকারি বাস মালিকেরা এই দ্বিগুণ ভাড়ার প্রস্তাবে আপত্তি তুলেছেন। এই প্রস্তাব ফলপ্রসূ হবার সম্ভাবনা নেই। তবে সরকারি আশা কয়েকটি জেলায় অন্তত সরকারি প্রস্তাব মেনে কিছু বেসরকারি বাস শুক্রবার থেকে পথে নামবে। রাজ্য পরিবহণ দপ্তরের অধিকর্তা বিশ্বজিৎ দত্ত জানিয়েছেন, শুক্রবার থেকে জেলাগুলিতে সরকারি বাস চলবে। কুড়িজন যাত্রী নিয়েই সরকারি বাস চালানো হবে। যাত্রীদের মধ্যে পারস্পরিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। বেসরকারি বাস মালিকদের সঙ্গে জেলাস্তরে বৃহস্পতিবার বিকেল পর্যন্ত আলোচনা হয়েছে। কয়েকটি জেলায় বেসরকারি সংগঠনগুলির আপত্তি রয়েছে। শেষ পর্যন্ত কি হতে চলেছে জেলা স্তরে আলোচনা না হলে বলা অসম্ভব। সরকারের অভিপ্রায় বাস চালানোর। এর জন্য প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। দীর্ঘদিন পর এই সুযোগ করে দিয়েছে সরকার।

বর্তমান কঠিন পরিস্থিতিতে রাজ্য সরকারের পাশে দাঁড়ানো উচিৎ। সরকারের পাশাপাশি বেসরকারি বাসও চালাতে হবে। সেক্ষেত্রে যাত্রীদের কাছে দ্বিগুণ ভাড়া নেবে এতে তাদের আপত্তি থাকার কথা নয়। কারণ সরকারি ও বেসরকারি বাসের রুট এক নয়। ফলে কোনও অসুবিধা হওয়ার কথা নয়। বেসরকারি বাসের মালিকরা সরকারের প্রস্তাবে রাজি হলে শুক্রবার থেকে গ্রিন জোন চিহ্নিত জেলাগুলিতে বাস নামবে। তিনি আরও জানান, বেসরকারি বাস মালিকদের এই প্রস্তাবের ওপর বুঝিয়ে রাজি করানোর দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে জেলাশাসক ও জেলার আরটিওদের। সে অনুযায়ী তারা আলোচনাও শুরু করেছেন। আশা করা যায় আলোচনার মাধ্যমে একটা জায়গায় তারা আসবেন। এদিকে জেলাস্তরের বেসরকারি বাস মালিক সংগঠনগুলি জানিয়েছে, কোনও জেলাতেই বাস মালিকরা সরকারের এই প্রস্তাবে রাজি হচ্ছেন না। তারা প্রশ্ন তুলেছেন সরকারি বাস এক ভাড়া নেবে ও বেসরকারি বাস দ্বিগুণ ভাড়া নেবে। যাত্রীরা এসব কেন মেনে নেবে? এতে গোলমাল, অশান্তি হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি। কিছু হলে তার দায় নেবে কে? শেষ পর্যন্ত বেসরকারি বাস মালিকরা গ্রিন জোনে বাস চালাতে একান্তই রাজি না হলে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়ার কথা ভাবছে রাজ্য সরকার। রাজ্য পরিবহন অধিকর্তা জানিয়েছে, শুক্রবার থেকে বাস চালানো হবেই। পরিষেবায় ঘাটতি থাকলে তবে বেসরকারি বাস রাস্তায় নামাতে কিছু পদক্ষেপ নিতেই হবে রাজ্য সরকারকে।

- Advertisement -