রাজ্য নেতৃত্বের উত্তরের অপেক্ষায় দিনহাটার বেসরকারি বাস মালিকরা

119

দিনহাটা: লিটার প্রতি ডিজেলের দর প্রায় একশো ছুঁই ছুঁই। যদিও বাসের ভাড়ায় কোনও পরিবর্তন নেই। এই পরিস্থিতিতে বিধিনিষেধে ছাড় দিয়ে বেসরকারি বাস চলানোর নির্দেশ দেয় সরকার। তবে, একাধিক জেলার পাশাপাশি কোচবিহারের দিনহাটার রাজপথেও দেখা মিলছে না কোনও বেসরকারি বাসের। স্বাভাবিকভাবেই সমস্যায় আমজনতা। অন্যদিকে, বাস পরিষেবা স্বাভাবিক না হওয়ায় সমস্যার সম্মুখীন পরিহণ কর্মীরাও।

জানা গিয়েছে, দিনহাটা-শিলিগুড়ি রুটে বেসরকারি বাসের সংখ্যা প্রায় ১৭ টি। অন্যদিকে দিনহাটা-ধূবরি রুটে চলে মোট ৪টি বাস। অন্যদিকে, ১৫টি’র ওপর বাস চলাচল করে দিনহাটা -কোচবিহার রুটে। বেসরকারি বাস মালিকদের একাংশ জানান প্রতিদিনই ডিজেলের দাম বেড়ে চলেছে। বাড়ছে গাড়ির খরচও। কিন্তু সেই অনুপাতে বাড়েনি বাস ভাড়া। এই পরিস্থিতিতে ৫০ শতাংশ যাত্রী নিয়ে বাস চললে ক্ষতির অঙ্ক সামলানো দায় হয়ে পড়বে। সেক্ষেত্রে এখনও বাস চলানোর কোনও সিদ্ধান্ত হয়নি স্থানীয়ভাবে।

- Advertisement -

বেসরকারি বাস মালিক সমিতির অন্যতম সদস্য সুব্রত মুখার্জী জানান, বর্তমান যে বাস ভাড়া তা ২০১৮ সালের তেলের দাম অনুযায়ী ধার্য করা হয়েছিল। সেসময় ডিজেল প্রতি লিটার ৬৮ টাকা ছিল, বর্তমানে ডিজেলের দর প্রতি লিটার ৯৩ টাকা। অর্থাৎ লিটার প্রতি ২৫ টাকা করে তেলের দাম বেড়েছে। সেই অনুপাতে বাসের ভাড়া বাড়েনি। ফলে বাস চালাতে গিয়ে ক্ষতির সম্মুখীন হতে হচ্ছে। আমাদের রাজ্য সংগঠনের নেতৃত্বরা ইতিমধ্যে বিষয়টি রাজ্যের পরিবহণ মন্ত্রীকে জানিয়েছেন। রাজ্য সংগঠনের তরফে বার্তা এলেই আমরা বাস পরিষেবা চালু করব।

তৃণমূল কংগ্রেস পরিচালিত বেসরকারী যাত্রী পরিবহণ সংগঠনের সম্পাদক সাধন সাহা জানান, তেলের দাম অস্বাভাবিক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। অথচ বাস ভাড়া সেই হারে বাড়েনি। তাই বেসরকারি বাস মালিকরা বাস না চালানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তবে দু-একটি ছোটো গাড়ি চলছে। সত্ত্বর হয়তো সেই পরিষেবা বন্ধ হয়ে যাবে। আমরাও তাদের এই দাবিকে সমর্থন করছি।