টি২০ বিশ্বকাপে চ্যাম্পিয়নরা পাবে ১২ কোটি!

দুবাই : বিশ্বযুদ্ধ বলে কথা।

পুরস্কারের অর্থটাও বিশাল হওয়াটাই প্রত্যাশিত। আসন্ন টি২০ বিশ্বকাপে সেই অর্থের ঝলকানি। বিরাট অঙ্কের পুরস্কার অর্থ বরাদ্দ করা হয়েছে কুড়ি-বিশের বিশ্বযুদ্ধে। ফাইনালে জিতলে চ্যাম্পিয়নের মুকুটের সঙ্গে বিজয়ী দলের পকেটে ঢুকবে ১২ কোটি টাকা। রানার্স দল পাবে ঠিক অর্ধেক ৬ কোটি টাকা।

- Advertisement -

সেমিফাইনালে ছিটকে যাওয়া বাকি দুই দলের পকেটেও যাচ্ছে মোটা অঙ্কের অর্থ। তারা পাবে ৩ কোটি টাকা করে। আইসিসির তরফে বিশ্বকাপের জন্য মোট ৪৫ কোটি টাকা আর্থিক পুরস্কার বরাদ্দ করা হয়েছে। প্রতিটি ধাপ, প্রতিটি ম্যাচ ধরেই পুরস্কারের ছড়াছড়ি। সুপার পর্বের প্রতিটি ম্যাচে বিজয়ী দল পাবে ৩০ লাখ টাকা করে। এমনকী যেসব দল সুপার-১২ পর্ব থেকে ছিটকে যাবে, তারাও প্রায় ৫৩ লাখ করে টাকা নিয়েই দেশে ফিরবে।

বঞ্চিত হচ্ছেন না যোগ্যতা অর্জন পর্ব (প্রথম রাউন্ড)-এর বিজয়ীরাও। তাদের জন্যও আর্থিক পুরস্কার থাকছে। প্রতি ম্যাচে বিজয়ী দল পাবে ৩০ লাখ। যোগ্যতা পর্ব থেকে ছিটকে যাওয়া চারটি দলকেও সম পরিমাণ অর্থ দেওয়া হবে। চমকে দেওয়া আর্থিক প্যাকেজের পাশাপাশি নিয়মেও বেশ কিছু রদবদল আনা হয়েছে। এরমধ্যে প্রতিটি ম্যাচের মাঝে জলপানের বিরতি রাখা হচ্ছে। ইনিংসের মাঝামাঝি সময়ে আড়াই মিনিট থাকবে জলপানের বিরতি।

গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ হিসেবে এবারই পুরুষদের টি২০ বিশ্বকাপে ডিআরএস প্রয়োগ হচ্ছে। আগের কোনো টি২০ বিশ্বকাপে রিভিউ সিস্টেম রাখা হয়নি। ২০১৮-র মহিলা বিশ্বকাপে প্রয়োগ করা হলেও, ছেলেদের টি২০ বিশ্বকাপে এবারই ডিআরসের সূচনা হচ্ছে। আম্পায়ারিং সিদ্ধান্তকে আরও নির্ভুল করার লক্ষ্যে প্রতিটি ইনিংসে দলগুলি দুটি করে ডিআরএস নিতে পারবে।

নিয়মমাফিক বৃষ্টিতে খেলা নষ্ট হলে ডাকওয়ার্থ লুইস পদ্ধতিতে ম্যাচের মীমাংসা হবে। তবে ন্যূনতম ৫ ওভার করে খেলা হতে হবে। নাহলে ম্যাচ বাতিল। তবে সেমিফাইনাল ও ফাইনালের মতো গুরুত্বপূর্ণ ডুয়েলে ৫-এর বদলে ১০ ওভার খেলা হলেই একমাত্র ডিএল মেথড প্রয়োগ করা যাবে।