ময়নাগুড়ি রোড স্টেশনে যাওয়ার পথে যাত্রীদের সমস্যা

অভিরূপ দে, ময়নাগুড়ি : সামান্য বৃষ্টিতেই ময়নাগুড়ি রোড স্টেশনে যাতায়াতের ক্ষেত্রে সাধারণ যাত্রী ও রেলকর্মীরা সমস্যায় পড়েন। জল জমে থাকায় মূল রাস্তা থেকে স্টেশনের যোগাযোগ পুরোপুরি বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। স্টেশনে যাওয়ার জন্য রেলের নিজস্ব রাস্তা না থাকার জন্যই এই সমস্যা হচ্ছে বলে ভুক্তভোগীদের বক্তব্য। রেল কর্তৃপক্ষ অবশ্য আশ্বাস দিয়েছে, বিষয়টি উপরমহলে জানানো হয়েছে। আশা করা হচ্ছে দ্রুত সমস্যার সমাধান হবে।

বছর পাঁচেক আগে মালবাজার-চ্যাংরাবান্ধা রুটে অবস্থিত ময়নাগুড়ি রোড স্টেশন দিয়ে ট্রেন চলাচল শুরু হয়। বর্তমানে দুটি প্যাসেঞ্জার ট্রেন ছাড়াও একাধিক এক্সপ্রেস এবং মালগাড়ি এই স্টেশন হয়ে যাতায়াত করে। ময়নাগুড়ি রোড, বার্নিশ, বাসদহ, কলতাপাড়া সহ বিভিন্ন এলাকার বাসিন্দারা এই স্টেশন থেকেই শিলিগুড়ি, মালবাজার, কোচবিহারে যাতায়াত করেন। কিন্তু প্রয়োজনীয় জমির অভাবে এখনও স্টেশনের সংযোগকারী রাস্তা তৈরি করা যায়নি। মূল রাস্তা থেকে স্টেশনে ঢোকার আগে এক কৃষকের জমি রয়েছে। যাত্রী ও রেলকর্মীরা স্টেশনে যাওয়ার জন্য ওই জমিই ব্যবহার করেন। সামান্য বৃষ্টিতেই ওই জমির উপর দিয়ে প্রবলবেগে জল বইতে থাকে। বিকল্প না থাকায় ওই জলের মধ্য দিয়ে যাতায়াত করতে হয়। বর্ষায় এই সমস্যা আরও বড় আকার ধারণ করে। কিন্তু দীর্ঘদিনের এই সমস্যা সমাধানের জন্য রেল বা স্থানীয় প্রশাসন কোনও ব্যবস্থা নিচ্ছে না বলে অভিযোগ।

- Advertisement -

এলাকার যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নের আশায় স্টেশন তৈরির সময় স্থানীয় বাসিন্দারা জমি ব্যবহারের অনুমতি দিয়েছিলেন। সেই জমি ব্যবহার করেই রেল কর্তৃপক্ষ স্টেশন তৈরির যাবতীয় সরঞ্জাম নিয়ে যেতেন। কিন্তু রেল কর্তৃপক্ষ মূল রাস্তা থেকে স্টেশনে প্রবেশের সমস্যা না মিটিয়ে স্টেশন চালু করে দেয় বলে অভিযোগ। এরপর থেকে সমস্যার আর সমাধান করা হয়নি। বর্ষার মধ্যে স্থানীয় বাসিন্দাদের জমিতে জল দাঁড়িয়ে যায়। সেই জল পেরিয়ে যাতায়াত করতে হচ্ছে। স্থানীয় বাসিন্দা শ্যামল রায় বলেন, স্টেশনের সামনে যেভাবে জল দাঁড়িয়ে রয়েছে তাতে স্টেশনে প্রবেশ করাই মুশকিল। যাত্রীদের কথা মাথায় রেখে অবিলম্বে স্টেশনে প্রবেশের জন্য রাস্তা তৈরি করা দরকার। আরেক বাসিন্দা কৌশিক দাস বলেন, বেশি বৃষ্টি হলে সমস্যা আরও বড় আকার নেয়।