শিলান্যাসের পর ২ বছরেও রাস্তার কাজ শুরু হয়নি

271

ডালখোলা : ডালখোলা থানার ৩১ নম্বর জাতীয় সড়কের বস্তাডাঙ্গি থেকে কমলপুর হয়ে সূর্যাপুর বস্তি দিয়ে সূর্যকমল রেলস্টেশনের উত্তর রেলগেট পর্যন্ত সাড়ে চার কিলোমিটার রাস্তা তৈরির জন্য প্রায় ২ বছর আগে পাকা সড়কের নির্মাণকাজের ফলক লাগিয়েছিল উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন দপ্তর। কিন্তু, তারপর এতদিন পেরিয়ে গেলেও কেন সেই কাজ শুরু করা গেল না তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন গ্রামবাসী। স্থানীয় বাসিন্দা মহম্মদ আবুল কালাম, মহিতোষ বিশ্বাস, অশোক সাহার বক্তব্য, উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন দপ্তর থেকে আদৌ রাস্তা নির্মাণের জন্য ডিপিআর করা হয়েছিল, নাকি শুধু ভোট টানতেই ওই ফলক লাগানো হয়েছিল। সংশ্লিষ্ট দপ্তর যদি ডিপিআর করেই থাকে তবে কাজের ফলকে নির্মাণকাজের বরাদ্দ টাকার পরিমাণ কেন লেখা নেই?
এ বিষয়ে স্থানীয় গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান সারা বেগম বলেন, ‘গ্রাম পঞ্চায়েতের ওই রাস্তাটি তৈরি করে দেওয়ার মতো আর্থিক সঙ্গতি নেই। তবু ধাপে ধাপে রাস্তাটি সম্পূর্ণ করার পরিকল্পনা হয়েছিল।‘ কিন্তু, জেলা পরিষদের সদস্য নিখাত বানুর আশ্বাসে রাস্তাটি মেরামত করার আশ্বাস মেলায় পরে আর এ ব্যাপারে উদ্যোগী হননি তাঁরা।
জেলা পরিষদের সদস্যা নিখাত বানু জানিয়েছেন, বস্তাডাঙ্গি থেকে কমলপুর হয়ে সূর্যাপুর বস্তি দিয়ে সূর্যকমল রেলস্টেশনের উত্তর রেলগেট পর্যন্ত সাড়ে চার কিলোমিটার রাস্তা তৈরির জন্য জন্য ডিপিআর করার প্রস্তাব জেলা পরিষদে পাঠানো হয়। রাস্তা নির্মাণকাজের জন্য উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন দপ্তরের কাছে প্রয়োজনীয় টাকা বরাদ্দ করার ব্যাপারে রাজ্যের মন্ত্রী গোলাম রব্বানি, জেলা পরিষদের সভাধিপতি কবিতা বর্মনকে জানানো হয়। তিনি আরও বলেন, উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন দপ্তর চাকুলিয়া বিধানসভা এলাকা থেকে বোর্ড মেম্বার না থাকায় বিভিন্ন প্রকল্পে অর্থ বরাদ্দ হয় না। যাঁরা মেম্বার রয়েছেন তাঁরা নিজ নিজ এলাকার জন্য সুপারিশ করেন। ফলে চাকুলিয়া অবহেলিতই থেকে যাচ্ছে। গোয়ালপোখরের বিডিও কানাইয়াকুমার রায় বলেন, ‘ওই রাস্তার বিষয়টি আমার জানা নেই। শুনেছি উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন দপ্তর রাস্তাটির কাজ করবে। তবে আমাদের কাছে বরাদ্দ এলে জানানো হবে।‘