ট্রেনের যাত্রা পথ ঘুড়িয়ে দেওয়ায় স্টেশেন চত্বরে বিক্ষোভ যাত্রীদের

215

রামপুরহাট: হঠাৎ করেই ট্রেনের যাত্রাপথ পরিবর্তন করায় বিপাকে মুম্বাইগামী দুই শতাধিক যাত্রী। স্টেশনে পৌঁছে ট্রেনের যাত্রাপথ পরিবর্তনের খবর পেয়ে ক্ষোভে ফেটে পড়েন তারা। বিক্ষোভ দেখানো হয় ষ্টেশন ম্যানেজার এবং এরিয়া অফিসারকে ঘিরে। রেল কর্মীদের সঙ্গে ধস্তাধস্তিতে জড়িয়ে পড়েন যাত্রীরা। যাত্রী বিক্ষোভের ফলে ট্রেন চলাচল ব্যহত হয়। পরে টিকিটের টাকা ফেরত দেওয়ার আশ্বাসে ফিরে যান যাত্রীরা। কামাখ্যা-মুম্বাই ২২৫১২ লোকমান্য তিলক কর্মভূমি এক্সপ্রেস। এই ট্রেনেই রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তের মানুষ মুম্বাইয়ে যান কাজের খোঁজে। কেউ সোনার দোকানের কারিগর, কেউবা রাজমিস্ত্রির যোগানদার হিসাবে কাজ করেন। এই ট্রেনেই সহজে গন্তব্যস্থলে পৌঁছনো যায়। তাই রুজির টানে এরাজ্যের কর্মহীন মানুষ কর্মভূমি ট্রেনে পারি দেন মুম্বাই। প্রতি রবিবার সকাল ১০:২১ মিনিটে ট্রেন রামপুরহাট ষ্টেশনে ঢোকার কথা। স্টেশেনে ট্রেনের যাত্রা পথ ঘুড়িয়ে দেওয়ার কথা ঘোষণা হতেই ক্ষোভে ফেটে পড়েন যাত্রীরা। বেশ কিছু ক্যান্সার আক্রান্ত রোগীও ট্রেন ধরার জন্য স্টেশনে ছিলেন।

রামপুরহাট স্টেশনের এরিয়া অফিসার পবিত্র কুমার মণ্ডল বলেন, “লুপ লাইনে কাজ চলায় ওই ট্রেনের যাত্রা পথ আজিমগঞ্জ হয়ে ঘুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। সেই বার্তা বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে বিজ্ঞপ্তি আকারে প্রকাশ করা হয়েছে। এছাড়া যাত্রীদের মোবাইলেও ট্রেনের যাত্রা বদলের বার্তা পাঠান হয়েছে। তারপরও এখানে কিছু যাত্রী ঝামেলা করছে। আমাদের ঠেলাঠেলি করছে। বিক্ষোভকারীরা ট্রেন চলাচলের সমস্ত মাধ্যম বিকল করে দেওয়ায় বেশ কিছু ট্রেন চলাচলে বিঘ্ন ঘটে। এখানে আমাদের তো কিছু করার নেই। আমরা বলেছি যারা অন লাইনে টিকিট কেটেছেন তাদের ৭২ ঘণ্টার মধ্যে টাকা ফেরত দেওয়া হবে। যারা কাউন্টারে টিকিট কেটেছেন তারা এদিনই পেয়ে গিয়েছেন”।

- Advertisement -