প্রথম হারের স্বাদ পেল পিএসজি

স্টাডে রেনেঁ : ২ (লাবোর্দে ৪৫, টেট ৪৬) – পিএসজি : ০

রেনে : দলে তিন মহারথী লিওনেল মেসি, নেইমার, কিলিয়ান এমবাপে। সঙ্গে অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া, মার্কো ভেরাত্তি, আশরাফ হাকিমি। বদলি হিসেবে এলেন মাউরো ইকার্দি, অ্যান্দের হেরেরা। তারপরও বিপক্ষের গোল লক্ষ্য করে একটিও শট নিতে পারেনি মাউরিসিও পচেত্তিনোর প্যারিস সাঁ জাঁ। উল্টে স্টাড রেনেঁর কাছে মরশুমের প্রথম হারটা হজম করে ফিরতে হচ্ছে তাদের।

- Advertisement -

রবিবাসরীয় সন্ধ্যায় যেন গোল নষ্টের প্রদর্শনীতে নাম লিখিয়েছিলেন মেসি, এমবাপেরা। প্রথমার্ধেই বার তিনেক এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ ছিল। কিন্তু তা কাজে লাগাতে পারেননি কেউই। দ্বিতীয়ার্ধেরও একই দৃশ্য। একবার মেসির ফ্রি-কিক ফিরে আসে গোল পোস্টে লেগে। ৬৭ মিনিটে জালে বল জড়িয়েছিলেন এমবাপে। কিন্তু ভিএআর জানায়, সেসময় অফসাইড ছিলেন এই ফরাসি তারকা। এরবাইরে গোল করার খুব একটা কাছে যেতে পারেননি। সবচেয়ে খারাপ অবস্থা নেইমারের। গোল করার থেকেও বিপক্ষ ফুটবলারদের ড্রিবল করার দিকে মন ছিল ব্রাজিলিয়ান তারকার। কিন্তু প্রতিবারই বল কেড়ে নিয়েছেন স্টাডের ডিফেন্ডাররা। এদিন অবশ্য ভিএআরের সৌজন্যে রেফারির দেওয়া পেনাল্টি বাতিল হওয়ায় স্বস্তি পেয়েছে প্যারিস।

প্যারিস কোচ পচেত্তিনো অবশ্য দল খারাপ খেলেছে মানতে নারাজ। তাঁর কথায়, আমরা বেশ কয়েকবার সুযোগ তৈরি করেছি। বিপক্ষের ওপর চাপও দিয়েছি। শুধু গোলটাই করতে পারিনি। মেসিদের হেডস্যরের বক্তব্য, ওরা একটা গোল করল প্রথমার্ধের শেষে, অন্যটি দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে। এটাই আমাদের মানসিকভাবে চাপে ফেলে দেয়। বিশেষত বিরতির ঠিক আগে গোল খাওয়া দলের পারফরমেন্সে প্রভাব ফেলে। এদিন হারলেও টানা ৮ জয়ে সুবাদে ২৪ পয়েন্ট নিয়ে লিগ ওয়ানের শীর্ষেই রয়েছে প্যারিস।