দক্ষিণ ভেলুরডাবরিতে পুজোর দায়িত্বে খুদেরা

188

আলিপুরদুয়ার: বাঙালির শ্রেষ্ঠ উৎসব দুর্গোৎসব। গত বছর করোনার কারণে মানুষ সেভাবে পুজোয় আনন্দ করতে পারেনি। তাই এবছর সেটা সুদে-আসলে মিটিয়ে নিতে মরিয়া সকলেই। কলকাতার পুজো মণ্ডপগুলিতে  তৃতীয়া, চতুর্থী, পঞ্চমীতে ভিড় ছিল যথেষ্টই। কলকাতার শ্রীভূমি স্পোর্টিং ক্লাব দুবাইয়ের বুর্জ খলিফার আদলে পুজো মণ্ডপ তৈরি করে সকলকে চমকে দিয়েছে। কলকাতা, শিলিগুড়ি, জলপাইগুড়ির বিগ বাজেটের পুজোর মণ্ডপ, প্রতিমা, আলোকসজ্জা দেখতে দর্শনার্থীদের ঢল নামবে। সেটাই স্বাভাবিক।

তবে এসব থেকে একটু অন্যরকম পুজো আয়োজিত হচ্ছে আলিপুরদুয়ারের দক্ষিণ ভেলুরডাবরি গ্রামে। কারণ সেখান পুজো আয়োজনের দায়িত্বে রয়েছে ৮ থেকে ১২ বছর বয়সি শিশু-কিশোররা! না তাদের পুজোয় নজরকাড়া মণ্ডপ, প্রতিমা বা আলোকসজ্জা নেই। তবে শিশুদের পুজোয় রয়েছে আন্তরিকতার ছোঁয়া। শিশু-কিশোররাই মণ্ডপ তৈরি করেছে। স্থানীয় বাসিন্দারাও সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। তাঁদের সঙ্গে কথা বলে জানা গিয়েছে, গতবছর করোনার কারণে দক্ষিণ ভেলুরডাবরি গ্রামের কচিকাঁচারা শহরে গিয়ে পুজো দেখতে পারেনি। সেবছর থেকে গ্রামের শিশু-কিশোররাই পুজো আয়োজনের দায়িত্ব নিজেদের কাঁধে তুলে নেয়। তাদের উৎসাহ দেখে অভিভাবকরাও এগিয়ে আসেন। এবছরও পুজো আয়োজিত হচ্ছে। প্রথম শ্রেণির পড়ুয়া সায়ন দাস, দ্বিতীয় শ্রেণির অঙ্কুশ দাস সহ অন্য কচিকাঁচারা মিলে কাপড় দিয়ে মণ্ডপ তৈরি করেছে। শত আলোকের রোশনাই না থাকলেও খুদে উদ্যোক্তাদের পুজো দেখতে ভিড় জমাবেন আশপাশের গ্রামের বাসিন্দারা।

- Advertisement -