পুন্ডিবাড়ির ভুট্টা পাড়ি দিচ্ছে ভুটানে, ভালো দাম পেয়ে খুশি চাষিরা

197

পুণ্ডিবাড়ি: এক দেশ থেকে আরেক দেশে পাড়ি দিচ্ছে ফসল। তাতেই লাভ ঘরে তুলছেন চাষিরা। পুন্ডিবাড়ি থেকে ভুট্টা পাশের দেশ ভুটানে পাড়ি দিচ্ছে। ভুটানের পাসাখায় শিল্পাঞ্চলে ভুট্টা থেকে তৈরি হচ্ছে গবাদি পশুর খাবার। পুন্ডিবাড়ির কৃষি রত্ন ফার্মার্স প্রোডিউসার কোম্পানি এই উদ্যোগ নিয়েছে। এই কোম্পানি বিভিন্ন জায়গা থেকে ভুট্টা কিনে ভুটানে পাঠানোর ব্যবস্থা করছে। এখনও পর্যন্ত ১০ গাড়িতে প্রায় ৪০০ টন ভুট্টা পাঠানো হয়েছে। এই আরও ক’দিন চলবে বলেই জানাচ্ছেন ফার্মার্স কোম্পানির আধিকারিকরা।

ভিনদেশে ভুট্টা যাওয়ায় অনেক বেশি দাম পাচ্ছেন কৃষকরা। ১৬ টাকা প্রতি কেজি দরে ভুট্টা বিক্রি করতে পারছেন কৃষকরা। ভুট্টাচাষি হেমন্ত বর্মন, আইজুল হোসেনরা জানান, গতবারের থেকে দাম অনেকটাই বেশি পাওয়া যাচ্ছে। ফলনও ভালো হয়েছে। গতবার কেজি প্রতি গড় দাম ছিল ১০-১২ টাকার মধ্যে। ভালো গুণগত মন হলে দাম অল্প বেশি। এইবার সব কৃষকরাই দাম পাচ্ছেন ভালো। চাষে আরও উৎসাহ বাড়ছে। আরেক ভুট্টাচাষি কমল রায় জানান, বাজারে গেলে বিভিন্ন দাম দর করে ভুট্টা বিক্রি করতে হয়। অনেক সময় পাইকাররা কম দামেই ভুট্টা কিনে নেন। ফার্মার্স কোম্পানির মাধ্যমে বাইরে ভুট্টা যাওয়ায় দামটা সঠিক পাওয়া যাচ্ছে। এই ফার্মার্স কোম্পানির তত্ত্বাবধানেও প্রায় ৬০০ বিঘা জমিতে ভুট্টা চাষ হয়েছে। কৃষকদের ভালো বীজ সহ সঠিক কীটনাশকের ব্যবস্থাও করেছিল তারা।

- Advertisement -

ফার্মার্স কোম্পানির ডাইরেক্টর সুভাষ বর্মন বলেন, ‘আমরা কৃষকদের কাছে ন্যায্যমূল্য দিয়ে ভুট্টা কিনছি। সেটা ভুটানে পাঠানো হচ্ছে। কৃষকরাও বেশি দাম পাচ্ছেন। বাজারের চাহিদা অনুযায়ী ভুট্টার দাম আরও বাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে।’ আরেক ডাইরেক্টর গোপালচন্দ্র সেন বলেন, ‘আগে ভুট্টা ডালখোলায় পাঠানো হত। এখন সেখানে বিহার থেকে ভুট্টা আসছে। ভুটানেও ভুট্টার চাহিদা রয়েছে। গবাদি পশুর খাবার বিভিন্ন ফ্যাক্টরিতে তৈরি হয়। তারাই চাহিদা অনুযায়ী ভুট্টা খরিদ করে।’