পূর্ত আধিকারিকদের কাজে প্রশ্ন শিলিগুড়িতে

রণজিৎ ঘোষ, শিলিগুড়ি : শিলিগুড়ি শহরে গান্ধিজির মূর্তি বসাতে বারবার বাধা দিচ্ছে পূর্ত দপ্তর। অথচ এই পূর্ত দপ্তরের হাতে থাকা শহরের বহু জমি, ফুটপাথ প্রতিদিন দখল হয়ে যাচ্ছে। তাতে ভ্রূক্ষেপই নেই দপ্তরের কর্তাদের। অভিযোগ উঠেছে, বেআইনিভাবে সরকারি জায়গা দখলকারীদের সঙ্গে বোঝাপড়ার জন্যই পূর্ত দপ্তরের আধিকারিকরা মুখে কুলুপ এঁটে রয়েছেন। তা না হলে কেন দিনের পর দিন এভাবে সরকারি জায়গা দখল হলেও তাঁরা চুপচাপ বসে রয়েছেন? বারবার সংবাদমাধ্যমে দখলদারির ছবি সহ সংবাদ প্রকাশিত হলেও কেন অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে না? বিষয়টি নিয়ে পূর্ত দপ্তরের নর্থবেঙ্গল কনস্ট্রাকশন ডিভিশনের এগজিকিউটিভ ইঞ্জিনিয়ারের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন ধরেননি, মেসেজ পাঠালেও জবাব দিতে পারেননি।

গ্রিন সিটি মিশন প্রকল্পে রাজ্য সরকার শিলিগুড়ি শহরে গান্ধিজির মূর্তি বসানোর জন্য আর্থিক বরাদ্দ দিয়েছে। সেই মতো প্রথমে এয়ারভিউ মোড়ের হিলকার্ট রোড এবং বর্ধমান রোডের সংযোগস্থলে মূর্তি বসানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছিল পুরনিগম। সেখানে ভিত তৈরির কাজও শেষ হয়। পূর্ত দপ্তর ওই জায়গা তাদের বলে দাবি করে কাজ বন্ধ করে দেয়। সেখান থেকে হাতগুটিয়ে নেয় পুরবোর্ড। এরপর পুরনিগম কাছারি রোডে মুখ্য ডাকঘরের সামনে গান্ধিজির মূর্তি বসানোর সিদ্ধান্ত নেয়। সেই মতো কাজও শুরু হয়। কিন্তু এখানেও খোদ পূর্ত দপ্তরের এগজিকিউটিভ ইঞ্জিনিয়ার এসে কাজ বন্ধ করে দেন এবং কাজের জন্য ঘিরে রাখা অংশ ভেঙে দেওয়া হয়। এই অবস্থায় সেখানেও কাজ বন্ধ রেখেছে পুরনিগম। সোমবার অবশ্য রাজ্যের পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম পুরনিগমের প্রশাসকমণ্ডলীর চেয়ারপার্সন অশোক ভট্টাচার্যকে ফোন করে মূর্তি বসানোর ব্যাপারে সম্মতি দিয়েছেন। মূর্তির উদ্বোধনে তাঁরাও আসবেন বলে পুরমন্ত্রী অশোকবাবুকে জানিয়েছেন। প্রশ্ন উঠেছে, তা হলে অতি সক্রিয় হয়ে পূর্ত দপ্তরের শিলিগুড়ির কর্তারা কেন বারবার এই কাজে বাধা দিচ্ছেন?

- Advertisement -

অথচ এই শহরেই পূর্ত দপ্তরের নর্থবেঙ্গল কনস্ট্রাকশন ডিভিশনের হাতে থাকা স্টেশন ফিডার রোডের দুপাশের জায়গা কার্যত পুরোটাই দখল হয়ে গিয়েছে। কিছু বিত্তশালী লোকজন নিজেদের বাড়ির সামনে অথবা বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের সামনেই রাস্তা সংলগ্ন সরকারি জায়গা দখল করে রেখেছেন। অনেকে পিলার, জালি দিয়ে সরকারি জায়গা ঘিরে রেখেছেন। সেসব কেন চোখে পড়ছে না পূর্ত দপ্তরের আধিকারিকদের? অভিযোগ উঠেছে, কিছু বোঝাপড়াতেই স্টেশন ফিডার রোডের ফুটপাথ এবং সংলগ্ন সরকারি জায়গায় দখলে মদত দিচ্ছেন পূর্ত দপ্তরের শিলিগুড়ির আধিকারিকদের একাংশ।