কালোবাজারি রুখতে ওষুধের দোকানে অভিযান

80

আসানসোল: ওষুধের দোকানগুলিতে অভিযানে নামল পশ্চিম বর্ধমান জেলা প্রশাসন ও ড্রাগ কন্ট্রোল ডিপার্টমেন্ট। করোনা আবহে ওষুধের কৃত্রিম ঘাটতি ও কালোবাজারি রুখতেই জেলা প্রশাসন এই পদক্ষেপ করেছে বলে জানা গিয়েছে।

আসানসোল, কুলটি, রূপনারায়ণপুর থেকে শুরু করে পশ্চিম বর্ধমান জেলার সর্বত্রই সাধারণ মানুষ বারবার অভিযোগ জানিয়ে আসছিলেন, করোনা রোগীদের যেসব ওষুধ প্রয়োজন সেগুলি দোকানে সময়মতো পাওয়া যাচ্ছে না। এমনকি ভিটামিন সি, ডি ও জিংক জাতীয় ওষুধও প্রয়োজনমতো মিলছে না। এমন অবস্থায় ওষুধের দামও বেড়ে গিয়েছে অনেকটাই। ওষুধের কৃত্রিম ঘাটতি ও কালোবাজারি যাতে না হয় তা খতিয়ে দেখতে জেলার সমস্ত দোকানে প্রশাসন অভিযান চালায়। এদিন থেকে প্রতিদিন জেলার সর্বত্র এই অভিযান চলবে বলে জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে। কোনও ব্যবসায়ী যাতে অত্যাবশ্যকীয় ওষুধ বেআইনিভাবে মজুত না করে রাখেন সেই দিকটিও বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে দেখা হচ্ছে। এদিন অভিযানে উপস্থিত ছিলেন পূর্ব বর্ধমানের ফুড ইনস্পেক্টর রেজিউল আলম৷ তিনি জানান, বাজারে ওষুধ মজুত ও সরবরাহ স্বাভাবিক রাখতে যেকোনও প্রকার সহযোগিতা ও ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দেওয়া হয়েছে৷ দোকানদারদের চিকিৎসকদের প্রেসক্রিপশন ও পরামর্শ ছাড়া ওষুধ বিক্রি বন্ধ করতে বলা হয়েছে৷ পাশাপাশি জেলা প্রশাসনের তরফে জানানো হয়েছে, এই অভিযানে কারও বিরুদ্ধে কালোবাজারি ও আইনভঙ্গ করার প্রমাণ পাওয়া গেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

- Advertisement -