বেআইনি পনীর-ছানা কারখানায় ছয়লাপ রায়গঞ্জ, অস্বস্তি সংকটে কুলিক দুগ্ধ সমবায় সমিতি

105

রায়গঞ্জ: নিয়ম না মেনে একের পর এক ছানা-পনীর কারখানা গজিয়ে উঠছে। স্বাভাবিকভাবেই দুধের ঘাটতি দেখা দিয়েছে রায়গঞ্জের কর্নজোরায় অবস্থিত কুলিক দুগ্ধ সমবায় সমিতির। স্বাভাবিকভবেই কমছে উৎপাদন। এই পরিস্থিতিতে প্রশ্ন চিহ্ন দেখা দিয়েছে উত্তরবঙ্গের দুগ্ধ সমবায় সমিতিএ ভবিষ্যৎ নিয়ে।

২০০২ সালে তৎকালীন মন্ত্রী আনিসুর রহমানের হাত ধরে পথ চলা শুরু হয় কুলিক দুগ্ধ সমবায় সমিতি। বর্তমানে ১৮ জন কর্মী সেখানে কাজ করেন। কর্মীদের একাংশের অভিযোগ, গ্রামেগঞ্জে একাধিক ছানা-পনিরের কারখানা গজিয়ে ওঠায় সমিতিতে দুধ পৌঁছোচ্ছে না। ফলে উৎপাদনে কিছুটা ঘাটতি দেখা দিয়েছে। সমবায় সমিতির কর্মী বিপ্লব সরকার জানান, আগে ৫ থেকে ৬ হাজার লিটার দুধ পৌঁছোত সমিততে। তবে বর্তমানে কমবেশি হাজার লিটার হয়েছে পৌঁছোচ্ছে। সমস্যা সমাধানে সরকারি সাহায্যের আবেদন জানিয়েছেন কর্মীরা।

- Advertisement -

রায়গঞ্জ পঞ্চায়েত সমিতির জন-স্বাস্থ্য কারিগরি দপ্তরের কর্মাধ্যক্ষ ব্যোমকেশ বর্মন বলেন, ‘অভিযোগ পেলে খতিয়ে দেখে উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’ অন্যদিকে, রায়গঞ্জ মার্চেন্টস এ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক অতনু বন্ধু লাহিড়ী বলেন, ‘এবিষয়ে প্রশাসন উপযুক্ত পদক্ষেপ নেওয়া প্রয়োজন।’