বিএসএফের উর্দি পরে সবজি বিক্রি করছেন রিকশাচালক

169

রায়গঞ্জ: শহরের রাস্তায় বিএসএফের উর্দি পরে সবজি বিক্রি করতে দেখা গেল এক রিকশাচালককে। প্রতিদিন সন্ধ্যা হলেই রায়গঞ্জ শহরের রাস্তায় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর পোশাক পরে সবজি বিক্রি করতে দেখা যায় তাঁকে। পোশাকের বাম ও ডান কাঁধে জ্বলজ্বল করছে বিএসএফ লেখাটি। এভাবে বিএসএফের পোশাক ব্যবহার নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। যদিও তা নিয়ে মাথাব্যাথা নেই তাঁর।

অভিযোগ উঠছে সীমান্তরক্ষী বাহিনীর পোশাকের অপব্যবহারেরও। রায়গঞ্জ গালর্স হাইস্কুল মোড় সংলগ্ন বিবেকানন্দ মোড় এলাকায় বন্ধ দোকানের সামনে বিএসএফের পোশাক পরে সবজি বিক্রি করছেন রণজিৎ মাহাতো নামে ওই ব্যক্তি। সন্ধ্যা হলেই সবজি নিয়ে বসেন তিনি। তবে কীভাবে তিনি সেনার পোশাক পেলেন, তা নিয়ে অনেকেই প্রশ্ন তুলেছেন।

- Advertisement -

সবজি বিক্রেতা রণজিৎ মাহাতোর দাবি, পরিবারে অনটন। স্ত্রী লোকের বাড়িতে পরিচারিকার কাজ করেন। স্ত্রী এই পোশাক তাঁকে এনে দিয়েছেন। দিনের অধিকাংশ সময় রিকশা চালান তিনি। রাতে সবজির দোকান করেন। শীত পড়েছে বলে তাঁর স্ত্রী কারও বাড়ি থেকে এই পোশাক এনে দিয়েছেন। তাঁর কথায়, তিনি লেখাপড়া জানেন না। এটা যে বিএসএফের পোশাক তাও তাঁর জানা নেই।

এব্যাপারে বিজেপির জেলা সভাপতি বাসুদেব সরকার জানান, ওই ব্যক্তির স্ত্রী যে বাড়িতে পরিচারিকার কাজ করেন সেখান থেকে ওই পোশাক পেয়েছেন। যদি ওই বাড়ির মালিক এই পোশাক দিয়ে থাকেন তাহলে খুবই অন্যায় করেছেন। সামরিক বাহিনীর পোশাক এভাবে ব্যবহার করা যায় না। সংশ্লিষ্ট বিএসএফ কর্মীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া উচিত বলেই তাঁর মত।

জেলা পুলিশ সুপার মহম্মদ সানা আখতার জানান, তিনি বিষয়টি দেখছেন। বিএসএফের ইউনিফর্ম রুল আছে তা দেখে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। বিষয়টি রায়গঞ্জ থানার নজরে আনা হয়েছে।