টিকা ছাড়া মিলবে না কাজ, হাসপাতালে লম্বা লাইন পরিচারিকাদের

146

রায়গঞ্জ: আগে টিকা পরে কাজ। কাজ হারানোর ভয়ে টিকা নিতে রাত জেগে হাসপাতালে লাইনে পরিচারিকারা। এমনই ছবি ধরা পড়ছে উত্তর দিনাজপুর জেলার রায়গঞ্জে। যদিও টিকা নিতেও ভোগান্তির শেষ নেই। চার-পাঁচদিন হাসপাতালে ঘুরেও টিকা মিলছে না। এদিকে টিকা না পেয়ে হাসপাতাল থেকে ফিরে আসতে হচ্ছে তাঁদের। অনেকেই কাজ হারানোর ভয়ে হাসপাতাল ক্যাম্পাসে রাত জেগে লাইন দিচ্ছেন। সঙ্গে থাকছেন তাঁদের স্বামীরাও।

পরিচারিকারা জানান, শহরের বিভিন্ন বাড়ি থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, টিকা ছাড়া বাড়ির কাজে রাখা সম্ভব নয়। সামনে পুজো। এই সময় কাজ হারালে না খেতে পেয়ে মরতে হবে। তাই রাত জেগে টিকা নিতে লাইনে দাঁড়াচ্ছেন তাঁরা। পরিচারিকারা জানান, ইতিমধ্যে রায়গঞ্জের উকিলপাড়ার এক পরিবারের কর্ত্রী তিনজন টিকা না নেওয়ায় ছাড়িয়ে দিয়েছেন। শুধু তাই নয় রায়গঞ্জের কলেজপাড়ার এক বাড়ির স্কুল শিক্ষিকার কথায়, করোনা টিকা দুটি ডোজ সম্পূর্ণ হওয়া মহিলাকেই বাড়ির কাজের জন্য খুঁজছেন‌। কেউ বা নিজের দায়িত্বে পরিচারিকাকে টিকাকরণ করিয়ে নিয়ে আসছেন। এদিকে রায়গঞ্জ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালেও ভিড় উপচে পড়েছে। পরিচারিকাদের বক্তব্য, টিকা না পেলে বাড়ির কাজ থেকে ছাড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে। অন্য জায়গায়ও কাজ মিলছে না। এদিকে টিকার জন্য বিভিন্ন এলাকার মানুষ রায়গঞ্জ মেডিকেলে লাইনে দাঁড়াচ্ছেন। প্রতিদিন ১০০-১৫০ জনের টিকা দেওয়া হচ্ছে। আর লাইনে দাঁড়াচ্ছেন হাজার মানুষ। জেলা স্বাস্থ্য দপ্তর সূত্রে জানানো হয়েছে, কোভ্যাক্সিন ও কোভিশিল্ড টিকাকরণ চলছে। কিন্তু একদিনেই যদি হাজার মানুষ লাইনে দাঁড়ান তবে সবাইকে টিকা দেওয়া সম্ভব নয়। রায়গঞ্জ মেডিকেলের নোডাল অফিসার বিপ্লব হালদার জানান, নিয়ম মেনে লাইনে দাঁড়ালে টিকা দেওয়া হবে। সেখানে পরিচারিকাদের জন্য আলাদা কোনও ছাড় নেই।

- Advertisement -