কোচবিহার : প্রায় ২৫ লক্ষ টাকা খরচ করে অত্যাধুনিক কোচ রেস্তোরাঁ তৈরি করেছিল রেল। ১৪ মাস আগে তার উদ্ধোধনও হয়েছে। কিন্তু তারপর রেস্তোরাঁ চালানোর জন্য কাউকে খুজে পাযনি তারা। এমনকি আইআরসিটিসি-কে চিঠি দিলেও তারা রেস্তোরাঁ চালানোর জন্য আগ্রহ দেখায়নি। তাই কোচবিহার স্টেশন সংলগ্ন রেস্তোরাঁ নিযে মহা সমস্যায পড়েছে উত্তর-পূর্ব সীমান্ত রেল। কবে চালু করা হবে সে বিষযে কিছু জানাতে পারেনি রেল কর্তৃপক্ষ।

কোচবিহার রেল স্টেশনের পাশে রেল মিউজিযাম রয়েছে। সেখানেই একটি রেলের কোচ রেস্তোরাঁ তৈরি করা হয়েছিল। একটি রেলের কোচকে সুন্দর ভাবে সাজিযে সেখানে রেস্তোরাঁ তৈরি করা হয। শীততাপ রেস্তোরাঁটিতে একটি ডাইনিং হল রয়েছে। তার সঙ্গে আছে বসবার আলাদা কেবিন ও। রেলের উদ্দেশ্য ছিল যে সমস্ত পর্যটক রেল মিউজিযামে আসবেন তারা এই রেস্তোরাঁয় বসে খেতে পারবেন। এর পাশাপাশি জন্মদিন সহ নানা অনুষ্ঠানেও রেস্তোরাঁ ভাড়া নিতে পারবেন সাধারণ মানুষ।

রেলের আলিপুরদুযার ডিভিশন সূত্রে জানা গিয়েছে, ২০১৮ সালের জুলাই মাসে কোচটির উদ্বোধন হয়েছিল। উত্তর-পূর্ব সীমান্ত রেলের এজিএম লোকেশ নারায়ণ কোচটির উদ্বোধন করেছিলেন। তখন রেল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছিল, শীঘ্রই আইআরসিটিসি-কে দিয়ে রেস্তোরাঁ চালু করা হবে। কিন্তু তারপর ১৪ মাস পেরিযে গেলেও সেটি চালু করতে পারেনি রেল। রেল সূত্রে জানা গিয়েছে, আইআরসিটিসি  রেস্তোরাঁ চালু করতে আগ্রহী নয়। এরপর রেল অন্য কোনো এজেন্সিকে দিয়ে এটি চালু করতে চাইলেও কেউ এগিযে আসেনি। মঙ্গলবার ফের কোচটি ঘুরে দেখেন রেলের আলিপুরদুযার ডিভিশনের ডিআরএম কনভির সৈন জৈন এবং সাংসদ নিশীথ প্রামাণিক।

রেলের আলিপুরদুযার ডিভিশনের ডিআরএম বলেন, ‘খুব সুন্দরভাবে রেস্তোরাঁটি তৈরি করা হয়েছে। এটা ব্যবহার হোক সেটাই চাইছি। সকলে এগিযে আসুক। কোনো পার্টি পেলেই তার সঙ্গে এগ্রিমেন্ট করে রেস্তোরাঁটি চালু করা হবে।’

ছবি- কোচবিহারে রেল রেস্তোরাঁ

তথ্য ও ছবি- চাঁদকুমার বড়াল