পূর্ব নির্ধারিত সংখ্যার চেয়ে বেশি সংখ্যক লোকাল ট্রেন চালানোর সিদ্ধান্ত রেলের

284

কলকাতা: ভিড় সামলাতে পূর্ব নির্ধারিত সংখ্যার চেয়ে বেশি লোকাল ট্রেন চালানোর সিদ্ধান্ত নিল রেল। রেলের আধিকারিকদের হওয়া বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়, পুরোনো সমসসূচির ৪৫ শতাংশ ট্রেন কলকাতা ও শহরতলির বিভিন্ন শাখায় পূর্ব ও দক্ষিণপূর্ব রেল চালাবে। বেশি ট্রেন চালানো হবে অফিস টাইমে।

করোনা পরিস্থিতিতে ২৩২ দিন বন্ধ থাকার পরে অবশেষে আগামী বুধবার থেকে বাংলায় সম্ভবত চালু হচ্ছে লোকাল ট্রেন। গত বৃহস্পতিবার নবান্নে রাজ্য ও রেলের বৈঠকে আগামী বুধবারকেই ফের লোকাল ট্রেন চালুর দিন হিসেবে বেছে নেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি করোনা সংক্রমণ থেকে বাঁচতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা বাধ্যতামূলক করে ২৫ শতাংশ ট্রেন নিয়ে শুরু হওয়ার কথা ছিল পরিষেবা। কিন্তু শিয়ালদা ডিভিশনে অত্যধিক যাত্রীর কথা মাথায় রেখেই শুক্রবার ফের সিদ্ধান্ত বদল করে রেল। জানা গিয়েছে, শিয়ালদা ডিভিশনে ২৫ শতাংশের বদলে আপাতত ৪৫ শতাংশ ট্রেন চলবে। বিষয়টি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রেলের সামনে তুলে ধরতে বলেছিলেন। তা রেলের কাছে বলার পরই এই নিয়ে সিদ্ধান্ত বদল হয়। অর্থাৎ, ৪৫ শতাংশ ট্রেন চললে রোজ ওই লাইনে ৪০০টি লোকাল ট্রেন চলতে পারে। হাওড়া ডিভিশনে ১০০টি এবং দক্ষিণ-পূর্ব রেলে ৩৪টি ট্রেন চলবে। কোনও গ্যালপিং ট্রেন রাখা হয়নি। প্রতিটি প্রধান স্টেশনেই সব ট্রেন দাঁড়াবে।

- Advertisement -

অপরদিকে, লোকাল ট্রেন পরিষেবার পাশাপাশি আগামী ১১ নভেম্বর থেকে থেকে বাড়ছে কলকাতা মেট্রো রেলের ট্রেনের সংখ্যাও। আপাতত সিদ্ধান্ত হয়েছে, প্রতিদিন মোট ১৯০টি ট্রেন চালানো হবে। সকাল এবং বিকেলে অফিস টাইমে ৭ মিনিট অন্তর চলবে মেট্রো। বর্তমানে দিনে ১৫০টির মতো ট্রেন চালাচ্ছিল কলকাতা মেট্রো। কিন্তু করোনা পরিস্থিতিতে ট্রেন পরিষেবা চালু নিয়ে দুশ্চিন্তা রয়েই গেল। করোনা পরিস্থিতিতে লোকাল ট্রেন চালু নিয়ে গত সোমবার রাজ্য-রেলের প্রথম বৈঠক হয়।জানা গিয়েছে, যাত্রীদের সুবিধার্থে প্রতি স্টেশনের সব টিকিট কাউন্টার খোলা থাকবে। তবে ইউটিএস অ্যাপ ব্যবহারে যাত্রীদের উৎসাহ দেওয়া হবে। আগের আলোচনায় ভিড় সামাল দিতে গ্যালপিং ট্রেনের ওপরও জোর দেওয়া হয়েছিল। তবে বৃহস্পতিবারের বৈঠকে ঠিক হয়েছে, আপাতত কোনও ট্রেনই গ্যালপিং হবে না। অতএব, ভিড় বাড়ার সম্ভাবনা এখানেও তৈরি হয়েছে।