ধস ও বৃষ্টিতে বিপর্যস্ত পাহাড়, আটকে পর্যটকরা

156

শিলিগুড়ি: পুজো কাটতেই উত্তরবঙ্গে শুরু হয়েছে বৃষ্টি। রবিবার মাঝরাতে মুষলধারে বৃষ্টি শুরু হয়। এর জেরে পাহাড়ে অনেক জায়গায় ধস নেমে থমকে যায় যানবাহন চলাচল। অনেক জায়গাতেই আটকে পড়েন পর্যটকরাও। ১০ নম্বর জাতীয় সড়কে কালিঝোরা থেকে রংপোর মাঝে বহু জায়গায় ছোটো বড় ধস নামায় এদিন দুপুর থেকে বহু গাড়ি আটকে পড়ে। এছাড়াও রংলি রংলিয়ট হয়ে তাকদা-তিনচুলে যাওয়ার রাস্তায় ধস নেমে আটকে আছেন পর্যটকরা। রিশপে ছয় মাইলের কাছে ১০ জন পর্যটককে নিয়ে দুটো জিপ আটকে পড়ে। বড় বিপদ এড়াতে আপাতত সান্দাকফু ট্রেকিং বন্ধ করেছে দার্জিলিং জেলা প্রশাসন। দার্জিলিংয়ের জেলাশাসক এস পন্নমবলম জানিয়েছেন, পাহাড়জুড়ে বিক্ষিপ্ত ধস নামার খবর মিলেছে, প্রশাসন যুদ্ধকালীন তৎপরতায় পরিস্থিতি মোকাবিলা করছে। কিছু জায়গায় বাড়ি ভেঙে পড়ার খবরও মিলেছে।

জানা গিয়েছে, রিম্বিকের পালমাজুয়া ব্রিজের কাছে ধস নেমে রাস্তা বন্ধ হয়ে গিয়েছে। কালিম্পং, লাভায় রাস্তা ভেঙেছে অনেক জায়গায়। তাকদায় একটি বাড়ি ভাঙারও খবর মিলেছে। সিকিমে ধসের জেরে দুর্ঘটনার কবলে পড়েছে একটি গাড়ি। পাথরের ধাক্কায় একটি গাড়ি সোজা খাদে গিয়ে পড়ে। আহত হয়েছেন যাত্রীরা।

- Advertisement -

জেলা প্রশাসন সূত্রের খবর, গোকে থেকে সিঙ্গল বাজার সড়কে ভূমিধস নেমেছে। এছাড়া ধোত্রে থেকে রিম্বিক সড়কের বিজনবাড়িতে একটি লোহার সেতু ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বৃষ্টি কমলে মেরামতের কাজ শুরু হবে। এছাড়া সুখিয়াপোখরি থেকে মানেভঞ্জনের রাস্তা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। সান্দাকুফু ও মানেভঞ্জনে বেশ কিছু পর্যটক আটকে পড়েছেন।