রাজেশ লাকরা-সঞ্জয় কুজুর তৃণমূলে যোগ দিলেও বিজেপির ক্ষতি হবে না: জন বারলা

189

চালসা: আদিবাসী নেতা রাজেশ লাকরার বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করলেন বিজেপি নেতা তথা আলিপুরদুয়ারের সাংসদ জন বারলা। বুধবার তিনি নাগরাকাটায় এক জনসভায় তিনি বলেন, আদিবাসী নেতা রাজেশ লাকরা ও নাগরাকাটার সমাজসেবী সঞ্জয় কুজুর কোনোদিন মানুষের কাজ করেননি। নিজেদের স্বার্থে ও তৃনমূলের টিকিটের আশায় তৃনমূলের যোগদিয়েছেন। এতে নাগরাকাটা বিধানসভায় কোনো প্রভাব পড়বে না। চা বাগানের মানুষ বিজেপিকে চায়।

এদিন বাতাবাড়িতে বিজেপির চা শ্রমিক সংগঠন বিটিডাবলুইউ সভায় বারলা বলেন, ওই দুই নেতার জনসমর্থম নেই বলেই তারা কলকাতা ও জলপাইগুড়িতে গিয়ে তৃণমূলে যোগদিয়েছে। তাদের সঙ্গে স্থানীয়রা নেই। তারা কখনও চা বাগান শ্রমিকের সমস্যার কথা শোনেননি, সমস্যা সমাধানে কোনও উদ্যোগে নেননি। তাদের তৃণমূলে যোগদান শুধু সাংবাদ মাধ্যমে আছে।

- Advertisement -

দুয়ারে দুয়ারে সরকার, স্বাস্থ্যসাথী, চা সুন্দরী’র মতো একাধিক প্রকল্পের ব্যর্থতার অভিযোগ তুলে বারলা বলেন, ‘চা বাগানের শ্রমিকদের জন্য চা সুন্দরী প্রকল্পের ঘোষণা করা হলেও একজন শ্রমিকও এখন ঘর পায়নি। ভোটের আগে সকলের জন্য স্বাস্থ্যসাথী কার্ড দিলেও আয়ুষ্মান ভারতের মতো বেসরকারি নার্সিং হোম গুলো স্বাস্থ্যসাথী কার্ডের সুবিধা পাচ্ছে। ভোটের আগে সকলকে সাস্থ্যসাথী কার্ড দিয়ে জনগণকে বোকা বানানো হচ্ছে। মানুষ সব জানে। রাজ্য সরকার রাজ্যের জনগনকে বোকা বানাচ্ছে। মানুষ কোনো পরিষেবা পাচ্ছে না। চা বাগানের জনগণের সমস্যার সমাধান হচ্ছে। তাই আগামী বিধানসভা নির্বাচনে তৃণমূলকে উৎখাত করে বিজেপিকে ভোট দিয়ে সরকারে আনার ডাক দেন বারলা।