দেহ পৌঁছোতেই উত্তেজনা! কেন গুলি? উত্তর খুঁজছে সলেমনের পরিবার

126

রাজগঞ্জ: রাজগঞ্জের মৃত তৃণমূল নেতার দেহ বাড়িতে পৌঁছোতেই দেখা দিল উত্তেজনা। মঙ্গলবার সকালে সলেমান মহম্মদ নামে ওই নেতার মৃত্যু হয়। খবর পেয়ে ওই এলাকার সমস্ত দোকানপাট বন্ধ রাখা হয়। বিকেল নাগাদ মৃতদেহ নিয়ে বহু মানুষ শিলিগুড়ি-জলপাইগুড়ি জাতীয় সড়কে গণ্ডার মোড়ে পৌঁছান। উপস্থিত ছিল বিশাল পুলিশবাহিনী। এরপরই শুরু হয় পথ অবরোধ। যান চলাচল বন্ধ হয়ে যাওয়ায় আটকে পড়েন বহু মানুষ। এক ঘন্টা অবরোধ চলার পর পুলিশের আশ্বাসে অবরোধ তুলে নেওয়া হয়। মৃতের ভাই জামাল মহম্মদ জানান, তাঁর দাদা একজন ভাল মানুষ ছিলেন। কিন্তু তাঁর নামে মিথ্যা প্রচার হয়েছে। ঘটনার পর ৪৮ ঘন্টা হয়ে গেলেও পুলিশ অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার করতে না পারায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন তিনি।

প্রসঙ্গত, রবিবার সন্ধ্যায় ভুটকিহাটে গুলিবিদ্ধ হন রাজগঞ্জের বলরামহাটের বাসিন্দা সলেমান। দুই দুষ্কৃতী বাইক চেপে এসে তাঁর মাথায় গুলি করে পালিয়ে যায়। ঘটনার পরপরই ওই তৃণমূল নেতাকে শিলিগুড়ির একটি বেসরকারি হাসপাতাল ভর্তি করা হয়। সোমবার সন্ধ্যায় সেখান থেকে তাঁকে উত্তরবঙ্গ মেডিকেলে নিয়ে যাওয়া হয়। পুলিশের তদন্তে উঠে এসেছে জমির কারবারে জড়িয়ে পড়াতেই তাঁকে প্রাণ হারাতে হল। এর পেছনে তৃণমূলেরই একটি গোষ্ঠীর হাত থাকতে পারে বলে সন্দেহ তদন্তকারীদের।

- Advertisement -