রাজনীতিতে নামার আগেই আইনি গেরোয় রজনীকান্ত

চেন্নাই : আগামী ৩১ ডিসেম্বর নিজের রাজনৈতিক দল ঘোষণা করবেন রজনীকান্ত। কিন্তু তার আগেই আইনি বিপাকে জড়ালেন থালাইভা। ২০১৮ সালের তুতিকোরিনে হিংসাত্মক ঘটনার তদন্তের স্বার্থে গঠিত বিচারবিভাগীয় কমিশনের তরফে ডেকে পাঠানো হয়েছে তাঁকে। আগামী ১৯ জানুয়ারি তাঁকে সংশ্লিষ্ট কমিশনের কাছে হাজিরা দিতে হবে। আগামী জানুয়ারিতেই নিজস্ব দল গঠনের কথা ঘোষণা করেছিলেন রজনীকান্ত। কিন্তু তার আগেই আইনি বিপাকে জড়ালেন অভিনেতা। তুতিকোরিন হিংসাত্মক ঘটনায় তাঁর পুরনো মন্তব্যের রেশ কেটে গেলেও এবার সেই পুরনো বিতর্কে নাজেহাল রজনী।

ব্যাপারটা কী?

- Advertisement -

২০১৮ সালের ২২ এবং ২৩ মে তুতিকোরিন আন্দোলনের সময় পুলিশের গুলিতে নিহত হয়েছিলেন ১৩ জন বিক্ষোভকারী। দ্রাবিড়ভূমের যে ঘটনাটির নিন্দায় সরব হয়ে উঠেছিল গোটা দেশ। যাকে তুতিকোরিন হিংসা আখ্যা দেওয়া হয় পরবর্তীকালে। স্টারলিট সংস্থার বিরুদ্ধে পথে নেমেছিলেন হাজার হাজার মানুষ। সেই আন্দোলনে তবে সেই সময়ে প্রিয় সুপারস্টার রজনীকান্তের মন্তব্য বেজায় শোরগোল ফেলে দিয়েছিল। পুলিশ ও এআইএডিএমকে সরকারের পক্ষে দাঁড়িয়েছিলেন তিনি। রাজ্য সরকারের সমর্থনে মন্তব্য করেছিলেন, সমাজবিরোধীরা এই আন্দোলনটিকে নিজেদের মতো করে চালাচ্ছে। বিক্ষোভকারীদের ওপর আরও কড়া হওয়া উচিত। শুধু তাই নয়, তিনি এও বলেছিলেন যে, সবসময় প্রতিবাদ করা উচিত নয়। যদি সব বিষয়ে রাস্তায় নামা হয়, তাহলে তো তামিলনাড়ু শ্মশানে পরিণত হবে। উর্দিপরা মানুষদের বিরোধিতা আমি মোটেই মেনে নেব না।

আর এই সুপারস্টারের মন্তব্যেরে জেরেই দ্রাবিড়ভূমের একাংশ তাঁর বিরোধিতা করেছিলেন। যদিও ঘটনাস্থলে যাওয়ার পরই রজনী তাঁর মন্তব্যটি ফিরিয়ে নেন। তবে পূর্বের বিতর্কিত মন্তব্যের জন্য একবারও ক্ষমা চাননি। জোর সমালোচনার মুখে পড়ে শুধু বলেছিলেন, কারও ভাবাবেগে আঘাত করার কোনও অভিপ্রায় আমার ছিল না। কেউ যদি আমার মন্তব্যে কষ্ট পান, তাহলে আমি ক্ষমাপ্রার্থী। এবার সেই মন্তব্যের জেরেই তদন্ত কমিশনের তরফে ডেকে পাঠানো হয়েছে তাঁকে। গত ২৫ ফেব্রুয়ারিও তাঁকে ডেকে পাঠানো হয়েছিল। কিন্তু তখনও কিছুটা সময় চেয়ে নেন রজনীকান্ত। এবার ফের সেই পুরনো ঘটনার জন্য আইনি বিপাকে পড়লেন দক্ষিণী সুপারস্টার।