মালদায় রাজনাথের জনসভা

647

মালদা, ১৮ এপ্রিলঃ দক্ষিণ মালদার বিজেপি প্রার্থী শ্রীরূপা মিত্র চৌধুরীর হয়ে নির্বাচনি জনসভা করলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী রাজনাথ সিং। বৃহস্পতিবার মালদার ডিএসএ ময়দানে এই সভা অনুষ্ঠিত হয়। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন দক্ষিণ মালদা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী শ্রীরূপা মিত্র চৌধুরী, পশ্চিমবঙ্গের বিজেপি পর্যবেক্ষক কৈলাস বিজয়বর্গীয়, মালদা জেলা বিজেপি সভাপতি সঞ্জিত মিশ্র সহ অন্যান্য বিজেপি নেতারা।

মালদায় রাজনাথের জনসভা| Uttarbanga Sambad | Latest Bengali News | বাংলা সংবাদ, বাংলা খবর | Live Breaking News North Bengal | COVID-19 Latest Report From Northbengal West Bengal India

- Advertisement -

এদিন সভায় বক্তৃতা রাখতে গিয়ে রাজনাথ বলেন, এভাবে দেশের শক্তি বৃদ্ধি পেতে থাকলে আগামী ২০৩০ সালের মধ্যে বিশ্বের তিনটি শক্তিশালী দেশের মধ্যে ভারতের অবস্থান হবে। বর্তমানের তিনটি শক্তিশালী দেশের মধ্যে একটিকে পিছনে ফেলবে ভারত। তার জন্য দেশের সাধারণ মানুষের সমর্থন দরকার। লোকসভা নির্বাচনের প্রথম দফার ভোট হয়ে গিয়েছে। দিল্লিতে ফের বিজেপি সরকার গঠন করতে চলেছে। নরেন্দ্র মোদি ফের দ্বিতীয় বারের জন্য প্রধানমন্ত্রী হচ্ছেন। রাজ্য সরকারকে কটাক্ষ করে তিনি বলেন, পশ্চিমবঙ্গে বন্দুকতন্ত্র চলবে না। এখানে লোকতন্ত্র চলবে। বাম আমলে যা চলত তৃণমূল আমলেও তা চলছে। সাধারণ মানুষ ও কৃষকদের জন্য প্রকল্প চালু করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। কিন্তু বাংলার সরকার তা লাঘু করতে দিচ্ছে না এ রাজ্যে। কিন্তু আমরা লাঘু করবই যেমন করে হোক। আমাদের সরকার হলে কৃষকদের কিষাণ ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে পাঁচ বছর পর্যন্ত বিনা সুদে ঋণ দেওয়া হবে। তিনি আরও বলেন, দক্ষিণ মালদা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী জয়ী হলে আবার মালদায় আসব।

ডিএসএ ময়দানে সভা হওয়ার পর রাজনাথ চাঁচল কলমবাগান ময়দানে উত্তর মালদা লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী খগেন মুর্মুর হয়ে নির্বাচনি জনসভায় উপস্থিত হন। সেখানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি কর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, আপনাদের কাছে কেউ যদি ভয় দেখিয়ে ভোট অন্যত্র দিতে বলে তাহলে তার নাম নথিভুক্ত করে রাখবেন আমরা তাকে দেখে নেব। বাংলায় আর তৃণমূলের গুন্ডাগিরি চলবে না। আজ তিনটি কেন্দ্রে ভোট হয়েছে। বেশ সুন্দর ভোটের হার ভোট বাক্সে জমা পড়েছে। এই থেকে বোঝা যায় তৃণমূলের পা পিছলে গিয়েছে। বাংলায় এবার বিজেপি আসছে আর তৃণমূল যাচ্ছে।