বিরল প্রজাতির ভোঁদড় ধরতে গিয়ে জখম রেঞ্জার

1463
ইনসেটে: চিলাপাতার সিমলাবাড়ি থেকে উদ্বার হওয়া ভোঁদড়।

চিলাপাতা: বিরল প্রজাতির প্রাণীর তান্ডবে লকডাউন ভেঙে গেলে সিমলাবাড়ি এলাকায়। শনিবার চিলাপাতা বনাঞ্চল লাগোয়া আলিপুরদুয়ার ১ ব্লকের পাতলাখাওয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের সিমলাবাড়িতে দেখা যায় ভোঁদড় নামে এক বিরল প্রজাতির প্রাণী। স্থানীয় কয়েকটি পুকুরে এই প্রাণীটিকে ধরতে কালঘাম ছুটে যায় বনকর্মীদের। এলাকার প্রচুর মানুষ সেখানে ভিড় করেন। এদিকে কয়েক ঘন্টার চেষ্টায় প্রাণীটিকে জাল পেতে ধর‍তে সক্ষম হয় বন দপ্তর। কিন্তু ওই প্রাণীর আক্রমণে চিলাপাতার রেঞ্জার সন্দীপ দাস ও একজন গ্রামবাসী জখম হয়েছেন। জলদাপাড়া জাতীয় উদ্যানের সহকারি বণ্যপ্রাণ সংরক্ষক দেবদর্শন রায় বলেন, ‘এটি এশিয়ান স্মল ক্লড ওট্টার(asian small clawed otter)। চলতি কথায় এর নাম ভোঁদড়। এটি বিরল প্রাণী। এখানে সচরাচর দেখা যায় না। প্রাণীটিকে উদ্বার করা হয়েছে। এটি রেঞ্জ অফিসারের হাতের আঙুলে কামড় বসিয়েছে।’

স্থানীয় ও বন দপ্তর সূত্রে খবর, এদিন সকালবেলায় সিমলাবাড়ি এলাকায় এই অজানা প্রাণীটিকে দেখা যায়। এলাকার কয়েকটি পুকুরে প্রাণীটি ঘুরে বেড়ায়। এ নিয়ে এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে। স্থানীয়দের মাধ্যমে খবর পেয়ে এলাকায় ছুটে আসেন চিলাপাতা বন দপ্তরের রেঞ্জার সন্দীপ দাস, বানিয়া বিটের বিট অফিসার অসীম ছেত্রী সহ অন্যান্য বনকর্মীরা। এদিকে বিরল প্রাণী দেখতে লকডাউন ভেঙে এলাকায় জমায়েত করেন গ্রামবাসীরা। তবে বারবার প্রাণীটিকে ধরার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয় বন দপ্তর। এরপর মাদারিহাট থেকে বন দপ্তরের একটি বিশেষ দল এলাকায় ছুটে আসে। কয়েক ঘন্টার চেষ্টায় প্রাণীটিকে জাল পেতে ধরতে সক্ষম হয়। কিন্তু প্রাণীটিকে পাকড়াও করতে গিয়ে জখম হন রেঞ্জার ও একজন গ্রামবাসী। ভোদড়টি দুজনেরই আঙুলে কামড় বসিয়ে দেয়৷

- Advertisement -

চিলাপাতার রেঞ্জের বানিয়া বিটের বিট অফিসার অসীম ছেত্রী বলেন, ‘সকালে খবর পেয়ে আমরা এলাকায় চলে আসি। এখানে ওই প্রাণীটিকে একটি পুকুরের মধ্যে দেখা যায়। এরপর মাদারিহাটের একটি টিমকে এখানে ডাকা হয়। প্রাণীটিকে ধরার জন্য জাল নিয়ে আসা হয়। এছাড়াও স্থানীয় যৌথ বন পরিচালন সমিতির প্রতিনিধি ও গ্রামবাসীরাও আমাদেরকে সহযোগিতা করেন। তবে এই ঘটনায় রেঞ্জ অফিসার ও স্থানীয় এক যুবকের হাতে চোট লেগেছে। প্রাণীটি দুজনের হাতে কামড় বসিয়েছে।’

বন দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে, এই ভোঁদড় নামক প্রাণীটি এশিয়া মহাদেশেরই প্রাণী। তবে জলদাপাড়া এলাকায় এই প্রাণীকে সচরাচর দেখা যায় না। এই বিরল প্রজাতির প্রাণীটি কীভাবে চিলাপাতার সিমলাবাড়ি এলাকায় চলে আসল তা নিয়ে চিন্তায় পড়েছেন বন দপ্তরের আধিকারিকরা। তাঁদের প্রাথমিক অনুমান, সম্প্রতি বৃষ্টির জলেই হয়তো ভুটান বা পাহাড়ি এলাকা থেকে প্রাণীটি এদিকে চলে এসেছে। এদিকে জখম রেঞ্জ অফিসার ও একজন গ্রামবাসীর প্রাথমিক চিকিৎসা হয়েছে আলিপুরদুয়ার ১ ব্লকের পাঁচকোলগুড়ি গ্রামীণ হাসপাতালে।