চণ্ডীগড়, ১৩ জুলাইঃ ধর্ষণ ও শ্লীলতাহানির ঘটনায় অভিযুক্তদের সরকারি সুবিধা থেকে বঞ্চিত করা হবে। বার্ধক্য জনিত পেনশন, প্রতিবন্ধকতা-পেনশন এবং স্কলারশিপের মতো সুবিধা তাদের দেওয়া হবে না। শুক্রবার একথা জানালেন হরিয়ানার মুখ্যমন্ত্রী মনোহরলাল খাট্টার। পঞ্চকুলায় নারীকল্যাণ সংক্রান্ত এক অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, ‘এই ধরনের অপরাধে যুক্ত ব্যক্তিরা আদালতে নির্দোষ প্রমাণিত হলে তবেই সরকারি সুবিধা তাদের ফিরিয়ে দেওয়া হবে।’ মুখ্যমন্ত্রীর কথায়, রাজ্যে ধর্ষণ ও শ্লীলতাহানির ঘটনায় লাগাম পরাতেই সরকার এই কড়া পদক্ষেপ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

মহিলাদের উপর অপরাধের ক্ষেত্রে কোনো ব্যক্তিকেই ছাড়া হবে না। শুধু পুরুষরাই নয়, বিষয়টিতে কোনো মহিলা কোনোভাবে যুক্ত থাকলে রেহাই দেওয়া হবে না তাকেও। মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, কোনো ব্যক্তির ক্ষেত্রে চার্জশিট গঠন করা হলে তাকে দেওয়া সবরকমের সরকারি সুযোগসুবিধা ফিরিয়ে নেওয়া হবে। শুধুমাত্র র‍্যাশনটুকুই তাকে দেওয়া হবে। এদিনের অনুষ্ঠানে মুখ্যমন্ত্রী কয়েকটি ঘোষণাও করেছেন। ধর্ষিতাদের এককালীন ২২ হাজার টাকা অনুদান দেওয়া হবে। বিনা খরচায় তাদের জন্য আইনজীবী নিয়োগের ব্যবস্থা করা হয়েছে। ধর্ষণের ক্ষেত্রে এক মাসের মধ্যে তদন্ত শেষ করতে হবে তদন্তকারী সংস্থাকে। শ্লীলতাহানির ক্ষেত্রে এই সময়সীমা ১৫ দিন।