সরকারি জমি দখলে মাফিয়ারাজ, উদাসীন প্রশাসন

164

রতুয়া: সরকারি জমি দখলে সক্রিয় মাফিয়ারা। প্রকাশ্য দিবালোকে একটু একটু করে রতুয়া-২ ব্লকের পুখুরিয়া মোড় এলাকার হাটের জমি দখল করে নেওয়া হচ্ছে। অন্তত ৪০ বছর ধরে ওই জমিতে হয়ে আসা বাজার সরিয়ে দিয়েছে তারা। বাজারের তিন ভাগ ইতিমধ্যেই মাফিয়াদের দখলে। বাকি অংশও যে কোনও সময় দখল হয়ে যাবে। দিনের আলোয় এসব চললেও নির্বিকার প্রশাসন।

পুখুরিয়া মোড়ে শোভানগর-বাহারাল রাজ্য সড়কের ধারে প্রায় ৪০ বছর আগে একটি জমি সরকারকে দান করেছিলেন স্থানীয় বাসিন্দা নিবারণ চৌধুরী। তখন রাজ্যে ছিল কংগ্রেসি আমল। নিবারণবাবু কংগ্রেসের নেতা হিসাবে এলাকায় পরিচিত ছিলেন। আশেপাশের ১৫-২০টি গ্রামের মানুষের সুবিধার জন্য হাট বসাতেই তিনি নিজের তিন বিঘা জমি দান করেন। তখন থেকেই নিবারণবাবুর দান করা জমিতে হাট বসতে শুরু করে। পরবর্তীতে জমিটি পঞ্চায়েত সমিতির হাতে যায়। প্রতি রবি ও বৃহস্পতিবার সেখানে হাট বসে। পুখুরিয়া ও আড়াইডাঙা গ্রাম পঞ্চায়েতের ১৫-২০টি গ্রামের মানুষ এখনও সেখানে কেনাকাটা করতে আসেন। সেই জমিই দিনের পর দিন চলে যাচ্ছে মাফিয়াদের কবজায়। হাট ব্যবসায়ী ইলিয়াস আলি জানান, মাস কয়েক আগে এক হাটের দিনে হামলা চালিয়ে সব চালাঘর ভেঙে গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়। হামলাকারীরা জানায়, তারা নাকি হাটের জায়গা কিনে নিয়েছে। তাঁদের ব্যবসা করার কোনও জায়গা নেই বলেই জানান ব্যবসায়ীরা। হামলাকারীরা সব তৃণমূলের লোক বলেই অভিযোগ তাদের। আরেক ব্যবসায়ী, শিমলা গ্রামের বাসিন্দা সাদেক জানান, এটা সরকারি জমি। গোঁসাইপুরের কিছু লোক হাটের জায়গা দখল করে নিয়েছে। প্রশাসনের কাছে অভিযোগ জানালে বিডিও, পুলিশ ও পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি তদন্ত করে গিয়েছেন। কিন্তু কোনও কাজ হয়নি। এখন কাদার মধ্যে ব্যবসা করতে বাধ্য হচ্ছেন তাঁরা।

- Advertisement -

বিডিও সোমনাথ মান্নার দাবি, ওই জমিটির মালিক কে, তা তাঁরা জানেন না। ভূমি ও ভূমি সংস্কার দপ্তর বলতে পারবে। এর মধ্যে সরকারি জমি কতটা, তাও তাঁদের জানা নেই। তবুও বিষয়টি খোঁজ নিয়ে দেখা হবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন তিনি। অনাস্থায় অপসারণের পর এখনও পর্যন্ত রতুয়া-২ পঞ্চায়েত সমিতির নতুন সভাপতি নির্বাচিত হয়নি। তবে পঞ্চায়েত সমিতির প্রাক্তন সভাপতি মহম্মদ নইমুদ্দিন বিষয়টি জানেন। তিনি আবার বর্তমান রতুয়া-২ ব্লক তৃণমূলের সভাপতিও। তিনি জানান, হাটের জমিটি অবশ্যই পঞ্চায়েত সমিতির। বেশ কিছুদিন ধরে দেখা যাচ্ছে হাটের জায়গা টিন দিয়ে ঘিরে ফেলা হয়েছে। বিষয়টি দেখা হবে।