মঞ্জরেকারের কটাক্ষ ভোলেননি জাদেজা

মুম্বই : ক্রিকেটের তিন ফরম্যাটেই তিনি অটোমেটিক চয়েজ। টিম ইন্ডিয়ার আসন্ন মিশন ইংল্যান্ডে বিরাট কোহলির বড়ো ভরসা হতে চলেছেন রবীন্দ্র জাদেজা।

ব্যাট হাতে তিনি সাবলীল। বল হাতে তিনি দায়িত্বশীল। আর ফিল্ডিংয়ে স্যর জাদেজার জুড়ি মেলা ভার। ক্রিকেট বিশেষজ্ঞদের অনেকেই তাঁকে আধুনিক ক্রিকেটের সেরা ফিল্ডার বলে থাকেন। অথচ, ফিল্ডিং স্কিল ধরে রাখার পাশে নিজেকে আরও এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার লক্ষ্যে কড়া ফিল্ডিং অনুশীলন না পসন্দ জাড্ডুর। সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমে এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, জাতীয় দলের ফিল্ডিং কোচ আর শ্রীধরকে আমি আগেই বলেছি, ফিল্ডিং চর্চার সময় কঠোর অনুশীলন পছন্দ নয় আমার। অতীতে বেশ কয়েকবার এমনটা করতে গিয়ে চোট পেয়েছি আমি। বেশি ফিল্ডিং অনুশীলন করে ক্লান্তিও চলে আসত। তাই এব্যাপারে একটু বেশি সতর্ক। তাছাড়া খেলার সময় নিজেকে মাঠে কীভাবে মেলে ধরতে হয়, ভালোই জানি আমি।

- Advertisement -

স্যর জাদেজা মানেই সাফল্যের আগ্রাসন। তাঁর অধিনায়ক কোহলির মতো তিনিও আগ্রাসী। কিন্তু সেই আগ্রাসনের মধ্যে অনেক সময় মিশে থাকে জবাব দেওয়ার লক্ষ্যও। ২০১৯ বিশ্বকাপের সময় প্রাক্তন ক্রিকেটার সঞ্জয় মঞ্জরেকার ধারাভাষ্য দিতে গিয়ে বলেছিলেন, জাদেজা কোনও ক্রিকেটারই নন। যা নিয়ে কম বিতর্ক হয়নি। জাড্ডুও যখনই সুযোগ পেয়েছেন, তখনই রান করে বা উইকেট নিয়ে মঞ্জরেকারকে পালটা দিয়েছেন। মঞ্জরেকারের এমন মন্তব্য আজও কষ্ট দেয় তাঁকে। জাড্ডুর কথায়, তখন হাওয়া গরম ছিল। মাঠে পারফর্ম করার পাশে কমেন্ট্রি বক্সের দিকে আমার নজর থাকত। জানি না প্রাক্তনরা কেন এভাবে সমালোচনা করেন। অনেকটা সময় কেটে গেলেও বিষয়টি ভুলিনি আমি। কোনও সময় তো ওকে পালটা দেওয়ার জন্যই মাঠে সেলিব্রেশন করেছি আমি।

চরম আগ্রাসী মানসিকতার পাশাপাশি জাদেজার মনে রয়েছে ক্ষোভও। বছর কয়েক আগে আচমকাই টিম ইন্ডিয়া থেকে বাদ পড়েছিলেন তিনি। সেই সময় কুলদীপ যাদব ও যুযবেন্দ্র চাহালকে সাদা বলের ক্রিকেটে তুলে ধরার পরিকল্পনা করেছিল ভারতীয় টিম ম্যানেজমেন্ট। কষ্ট পেয়েছিলেন জাড্ডু। মানসিক যন্ত্রণায় রাতের পর রাত ঘুম আসত না তাঁর। সৌরাষ্ট্রের অলরাউন্ডারের কথায়, ওই দেড় বছর সময়টা অত্যন্ত কষ্টে কাটিয়েছি। রাতে ঘুম আসত না আমার। মনে হত, আর কি জাতীয় দলে ফিরতে পারব? কিন্তু কখনই মনের জোর হারাইনি। তাই কামব্যাক করতে পেরেছি আমি। ২০১৮ সালে টিম ইন্ডিয়ার ইংল্যান্ড সফরে একটি টেস্টে আচমকাই সুযোগ পেয়েছিলেন জাদেজা। কোহলিদের ব্যাটিং বিপর্যয়ের সেই ম্যাচে ১৫৬ বলে ৮৬ রান করে দলে নিজের জায়গা পাকা করেন তিনি।