স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার নামে হাসপাতালে নিয়োগ! পেছনে কি টাকার খেলা ?

398

মেখলিগঞ্জ:  অর্থের বিনিময়ে স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার নামে হাসপাতালে নিয়োগের অভিযোগে ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়াল কোচবিহার জেলার মেখলিগঞ্জ ব্লকে। অভিযোগ, মোটা টাকার বিনিময়ে বিভিন্ন স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়োগ করা হচ্ছে অথচ এনিয়ে কোনওরকম তথ্য নেই স্বাস্থ্যদপ্তরের কর্তাদের কাছে। জানা গিয়েছে, মেখলিগঞ্জ ব্লকেও একটি চক্র সক্রিয়, যাদের ফাঁদে পা দিয়েছেন অনেক যুবক যুবতী এমনকি গৃহবধূরাও। ব্লকের কুচলিবাড়ি, ও চ্যাংরাবান্ধা ব্লক প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রেও ওই সব সংস্থার নিযুক্ত ব্যক্তিরা কাজ করছেন। এই খবর ছড়িয়ে পড়তেই প্রশাসনিক মহলেও হইচই শুরু হয়ে গিয়েছে। তাদের তরফেও ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে। যদিও এনিয়ে এখনই খোলসা করে তাঁরা কিছু বলতে চাননি। এদিকে এই ঘটনার পিছনে শাসক দলের নাম জড়ানোর চেষ্টা হতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে দলেরই একাংশের তরফে। তৃণমূলের মেখলিগঞ্জ শহর কমিটির সহ সভাপতি বিষ্ণুপদ ঘোষ মঙ্গলবার ফেসবুকে একটি সতর্কতা মূলক পোস্টও করেছেন। এ প্রসঙ্গে মেখলিগঞ্জ ব্লকের ভারপ্রাপ্ত বিএমওএইচ ডাক্তার উত্তম রায় জানান, এই রকম কয়েকজন চ্যাংরাবান্ধা ব্লক প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে যোগ দিতে এসেছিলেন। কিন্তু তার কাছে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের তরফে এইরকম কোনও নির্দেশ না থাকায় তিনি তাদের কাজের অনুমতি দেননি। ঘটনার খবর পৌঁছেছে এলাকার বিধায়ক তথা রাজ্যের শিক্ষা দপ্তরের প্রতিমন্ত্রী পরেশচন্দ্র অধিকারীর কাছেও। এরপরেই তিনি বিষয়টি মেখলিগঞ্জের মহকুমা শাসক রামকুমার তামাংকে দেখতে বলছেন। পরেশবাবু এদিন জানিয়েছেন,  সরকারের তরফে স্বাস্থ্যকেন্দ্রে এই নিয়োগ হচ্ছে না। সেকারণে এই নিয়োগ বৈধ কি না পুরো বিষয়টি  মহকুমা শাসককে দেখতে বলা হয়েছে। জেলা মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক সুকান্ত বিশ্বাস জানিয়েছেন, তিনি সদ্য দায়িত্ব নিয়েছেন পুরো বিষয়টি খোঁজ নিয়ে দেখবেন।