শুধু একটি নৌকাই ভরসা, ৭১ বছরেও বদলালোনা যে গ্রামের পরিস্থিতি

143

রায়গঞ্জ: শুধুমাত্র একটা নৌকাই ভরসা। ৭১ বছর ধরে মুখ বুজে অসহায়ের মত টিকে রয়েছে একটা আস্ত গ্রাম। রোজগার বাজার-হাট থেকে শুরু করে মুমূর্ষ রোগীর চিকিৎসার জন্য নৌকা করে ছুটতে হয় নদীর বুকের ওপর দিয়ে। ওই নৌকা আবার নিজেদের চালিয়ে নিয়ে যেতে হয়। মাঝির দেখা মেলে না। গ্রামটির পূর্ব দিক দিয়ে বয়ে যাচ্ছে নাগর নদী, পশ্চিমে মহানন্দা, মাঝখানে বিহারের কাটিহার জেলা দিয়ে ঘেরা এক খন্ড জমি। সেটাই উত্তর দিনাজপুর জেলার রায়গঞ্জ থানার দুবদুয়ার গ্রাম। নৌকা চেপে নাগর ছাড়িয়ে এই গ্রামে পা ফেলতেই অসহায়তার ছবিটা আরও স্পষ্ট হয়ে যায়। অন্তত ২ হাজার পরিবারের বাস এই গ্রামে। ঢিলছোড়া দূরত্বে বারশোই থানার তিন থেকে চারটি গ্রাম। মাঝে ব-দ্বীপের মত রায়গঞ্জের দুবদুয়ার জেগে আছে। নদী পারাপারের পাকা সেতু দূরের কথা, বাঁশের শক্ত স্থায়ী সাঁকোটুকুও নেই।

উত্তর দিনাজপুর জেলার রায়গঞ্জ ব্লক অফিস থেকে ১২ কিলোমিটার দূরত্বে গৌরী গ্রাম পঞ্চায়েত কার্যালয়। ১০ কিলোমিটার দূরে দুপদুয়ার গ্রাম। এই গ্রামের প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পড়ুয়ার সংখ্যা ১২৩জন। ওই স্কুলের প্রধান শিক্ষক শ্রীনাথ দাস জানান, অধিকাংশ গরিব পরিবারের ছেলেমেয়ে। স্কুলে নেই পানীয় জলের ব্যবস্থা। গভীর নলকূপের জন্য বারবার আবেদন করেও সাড়া পাওয়া যায়নি। অধিকাংশ গ্রামবাসী ১০০ দিনের কাজ পায়নি। দু-একজন বাদ দিলে বার্ধক্য-ভাতা যে কি জিনিস তা অনেকেই জানেন না। আর তাই কার্যত মরে মরে বেঁচে আছে এই গ্রাম। নির্বাচন আসে যায় শুধরায় না এই গ্রামের ভাগ্য।

- Advertisement -