রিপোর্ট নেগেটিভ, স্বস্তিতে রায়গঞ্জ মেডিকেল কলেজ

421
ফাইল ছবি

রায়গঞ্জ: প্রায় তিরিশ ঘণ্টা পেরোনোর পর স্বস্তিতে রায়গঞ্জ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। চলতি মাসের ১৪ তারিখ প্রবল জ্বর ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে রায়গঞ্জ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের আইসোলেশন বিভাগে ভর্তি হয়েছিলেন কালিয়াগঞ্জের ডালিমগাঁওয়ের এক শ্রমিক। শুক্রবার হাসপাতালের আইসোলেশন তাঁর বিভাগে মৃত্যু হয়। মৃতদেহ পরিবারের হাতে না দিয়ে হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছিল। করোনা রিপোর্ট না আসা পর্যন্ত মৃতদেহ পরিবারকে দেওয়া হবে না বলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের তরফ থেকে জানানো হয়। এরপরেই হাসপাতাল সহ ডালিমগাঁোয়ে করোনা আতঙ্ক ছড়ায়।

শনিবার রাত এগারোটার পর মৃত ব্যক্তির করোনা রিপোর্ট নেগেটিভ আসে। রিপোর্ট আসতেই স্বস্তিতে রায়গঞ্জ মেডিকেল কলেজ কর্তৃপক্ষ। রায়গঞ্জ মেডিকেল কলেজের সহকারী অধ্যক্ষ প্রিয়ঙ্কর রায় বলেন, “আইসোলেশনে মৃত ব্যক্তির লালা রসের নমুনা পরীক্ষার জন্য মালদা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে পাঠানো হয়েছিল। এদিন রাতে রিপোর্ট নেগেটিভ আসে। রবিবার পরিবারের হাতে মৃতদেহ তুলে দেওয়া হবে।”

- Advertisement -

মৃতের স্ত্রী অষ্টমী বর্মণ বলেন, “কাল রাত থেকেই স্বামীর মৃতদেহ নেওয়ার জন্য হাসপাতালে বসে ছিলাম। এদিন সন্ধ্যা সাতটা পর্যন্ত রিপোর্ট না আসায় মৃতদেহ দেওয়া হয়নি। তাই আমরা বাড়িতে চলে আসি। কিছুক্ষণ আগে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ফোন মারফত জানায় করোনা রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে।