নজরে কর্মহীনরা, এবার শহরেও ১০০ দিনের কাজের প্রকল্প

316

নয়াদিল্লি : মহাত্মা গান্ধি গ্রামীণ কর্মসংস্থান নিশ্চয়তা প্রকল্প (এনআরইজিএ)-এর পরিসর আরও বাড়ানোর কথা ভাবছে কেন্দ্র। ঠিক হয়েছে শহরাঞ্চলকেও এই প্রকল্পের আওতায় আনা হবে। মূলত কর্মহীন শহুরের জন্য প্রকল্পের এই ব্যাপ্তি ঘটানোর কথা ভাবা হয়েছে। সেজন্য চলতি অর্থবর্ষের প্রথম পাঁচ মাসে (১ এপ্রিল থেকে ৩ সেপ্টেম্বর) ৮৩ লক্ষেরও (৮৩.০২ লক্ষ) বেশি পরিবারকে এই প্রকল্পে জব কার্ড দেওয়া হয়েছে, গত সাত বছরে এনআরইজিএ প্রকল্পে যা রেকর্ড। লকডাউনের ধাক্কায় দেশের অর্থনীতি এখন বেহাল। চার দশকের মধ্যে সবচেয়ে নীচে নেমেছে জিডিপি। এর প্রভাব পড়ছে কর্মসংস্থানে। চাকরির বাজারে এখন ঘোর অনিশ্চয়তা। এনআরইজিএ-কে আরও বিস্তৃত করে অন্তত গরিবের কর্মসংস্থান বৃদ্ধির এই মরিয়া চেষ্টা বলে মনে করা হচ্ছে। ২০১৯-২০ সালে ৬৪ লক্ষ ৭০ হাজার পরিবারকে এই প্রকল্পে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছিল। সেই তুলনায় এবার অন্তর্ভুক্তি ২৮.৩২ শতাংশ বেড়েছে। মনে করা হচ্ছে, করোনাকালে ভিনরাজ্যে কর্মচ্যুত যে শ্রমিকরা নিজেদের মহল্লায় ফিরে এসেছেন, তাঁদের কর্মসংস্থানের কথা ভেবেই এই পদক্ষেপ। গ্রামাঞ্চলে আগেই পরিয়াযী শ্রমিকদের অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছিল। এবার নজর শহরে ফিরে আসা পরিযায়ী শ্রমিকরাও।

জব কার্ড দেওয়ার ক্ষেত্রে এখনও পর্যন্ত এগিয়ে আছে উত্তরপ্রদেশ (২১.০৯ লক্ষ), বিহার (১১.২ লক্ষ), পশ্চিমবঙ্গ (৬.৮২ লক্ষ), রাজস্থান (৬.৫৮ লক্ষ) এবং মধ্যপ্রদেশ (৫.৫৬ লক্ষ)। গত অর্থবর্ষে উত্তরপ্রদেশে এই কর্মসংস্থান প্রকল্পের আওতায় আনা হয়েছিল ৭.৭২ লক্ষ পরিবারকে। গত বছরের তুলনায় কর্মসংস্থান প্রকল্পের পরিসর বৃদ্ধির হারও বেশি উত্তরপ্রদেশ (১৭৩ শতাংশ), অন্ধ্রপ্রদেশ (১৫৪ শতাংশ) এবং রাজস্থানে (৬৯ শতাংশ)। এই প্রকল্পে প্রতিটি পরিবারকে জব কার্ড দেওয়া হয় যাতে পরিবারের সমস্ত সদস্যের নাম ও ছবি থাকে। ওই কার্ড দেখিয়ে তাঁরা প্রকল্পের কাজ পান। গ্রাম ছেড়ে শহরের স্থায়ী বাসিন্দা হয়ে গেলে ওই জব কার্ড বাতিল করা হয়। এ বছর এখনও পর্যন্ত ১০.৩৯ লক্ষ জব কার্ড বাতিল করা হয়েছে। গত বছর সংখ্যাটা ছিল ১৩.৯৭ লক্ষ। ৩ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত মনরেগা প্রকল্পে অন্তর্ভুক্ত পরিবারের সংখ্যা ১৪.৩৬ কোটি। কেন্দ্রীয় আবাস ও নগরোন্নয়ন মন্ত্রকের যুগ্মসচিব সঞ্জয় কুমার জানিয়েছেন, ছোট শহরে এই প্রকল্পে কাজ হতে পারে। এজন্য প্রাথমিক খরচ ধরা হয়েছে ৩৫,০০০ কোটি টাকা। তাঁর কথায়, গত বছর থেকে এ ব্যাপারে ভাবনাচিন্তা করছে সরকার। করোনার জেরে এই আলোচনা আরও গতি পেয়েছে। এই বছরে গ্রামীণ কর্মসংস্থান প্রকল্পে ১ লক্ষ কোটির বেশি টাকা ঢেলেছে মোদি সরকার।

- Advertisement -