রাস্তায় কাদা, সন্ধের পর পথে নামেন না মাঝেরটারির বাসিন্দারা

মাথাভাঙ্গা : জলকাদায় বেহাল রাস্তা। বাড়িতে ঢুকতে ও বাড়ি থেকে বেরোতে গেলেও এক হাঁটু কাদা মাড়িয়ে যেতে হচ্ছে। আর বেহাল রাস্তার কারণে সন্ধের পর বাড়ি থেকে বেরই হন না পচাগড় গ্রাম পঞ্চায়েতের মাঝেরটারির বাসিন্দারা। বেহাল রাস্তাটি সংস্কারের জন্য গ্রাম পঞ্চায়েত কর্তৃপক্ষের কাছে বারবার আর্জি জানিয়ে কাজ না হওয়ায় ক্ষুব্ধ এলাকাবাসী। তাঁরা রবিবার বেহাল রাস্তায় ধানের চারা পুঁতে প্রতিবাদ জানালেন। অবিলম্বে রাস্তা সংস্কার না হলে বৃহত্তর আন্দোলনের হুমকি দিয়েছেন এলাকার বাসিন্দারা।

বেহাল রাস্তা নিয়ে সরব হয়েছে বিরোধী দল বিজেপিও। বিজেপির সংশ্লিষ্ট ২৪১ নম্বর বুথ সভাপতি বলেন বর্মনের অভিযোগ, রাজনৈতিক পক্ষপাতিত্বের কারণেই রাস্তাটি সংস্কার করা হচ্ছে না। এলাকার বাসিন্দারা বিজেপি সমর্থক। তাই তৃণমূল পরিচালিত গ্রাম পঞ্চায়েত বোর্ড ওই রাস্তা সংস্কার করছে না। গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান ও তৃণমূল কংগ্রেস নেতা উদয় সরকার বলেন, এই অভিযোগ ভিত্তিহীন। এলাকায় বিভিন্ন রাস্তা সংস্কারের কাজ চলছে। মাঝেরটারির একাংশেও রাস্তা তৈরি করা হচ্ছে। ভিত্তিহীন অভিযোগ তুলে বিরোধী দল বাজার গরম করতে চাইছে। এলাকার বাসিন্দাদের সমস্যা মেটাব আমরা। পচাগড় গ্রাম পঞ্চায়েতের নির্মাণসহায়ক কৃষ্ণচন্দ্র রায় জানান, ওই রাস্তার প্রায় ৫০ মিটার দীর্ঘ অংশের দুপাশের বাড়ির উঠোন মাটি ফেলে উঁচু করে দেওয়ায় গোটা জল রাস্তায় এসে জমা হচ্ছে। এছাড়াও ওই স্থানে জলনিকাশি ব্যবস্থা না থাকায় এই পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। গতবছরও ওই রাস্তায় মাটি ফেলা হয়েছিল। রাস্তায় ধানের চারা লাগানোর বিষয়টি শুনেছি। বিষয়টি খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

- Advertisement -

তবে রাজনৈতিক টানাপোড়েনে যেতে নারাজ এলাকার বাসিন্দারা। মাঝেরটারির বাসিন্দা প্রকাশ বর্মন, জগদীশ বর্মন ও মৃদুল বর্মনের অভিযোগ, বিগত ৪ বছর ধরে রাস্তাটির সংস্কার করা হয়নি। আর এবারের বর্ষায় রাস্তাটি কার্যত চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। বাড়িতে ঢুকতে এবং বাড়ি থেকে বের হতে রাস্তায় জমে থাকা একহাঁটু কাদা মাড়াতে হয়। বিষয়টি স্থানীয় গ্রাম পঞ্চায়েত সদস্য এবং গ্রাম পঞ্চায়েত কর্তৃপক্ষের নজরে আনা হলেও রাস্তাটি সংস্কারের কোনও পরিকল্পনা করা হয়নি। তাঁদের আক্ষেপ, দৈনন্দিন প্রয়োজনে কাদা মাড়িয়ে বাধ্য হয়ে যাতায়াত করতে হচ্ছে। কিন্তু সন্ধের পর থেকে রাস্তায় জমে থাকা কাদার ভয়ে কেউ বাড়ি থেকে বের হন না। সংবাদমাধ্যম দ্বারা প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করার জন্যই কাদাভর্তি বেহাল রাস্তায় ধানের চারা বপন করে এদিন প্রতিবাদ জানানো হয়েছে।