জেলা ভাগে ভোগান্তি ভূখন্ডের বাসিন্দাদের, ভোট দিলেন নৌকার মাধ্যমে

126

জটেশ্বর: শনিবার ছিল পঞ্চম দফার বিধানসভা নির্বাচন। জেলার মূল অংশের বাসিন্দারা যখন স্বাচ্ছন্দ্যে ভোট দিতে গিয়েছেন তখনই বিসন্ন মুখেও নদী পার হয়ে ভোট দিতে গেলেন জলপাইগুড়ি জেলার বিচ্ছিন্ন হওয়া দুটি ভূখন্ডের প্রায় দুইশো পরিবার। বাসিন্দাদের অভিযোগ, সেখানে না আছে সুলভ যোগাযোগ ব্যবস্থা, না আছে স্বাস্থ্যকেন্দ্র কিংবা না আছে  নদী পারপারের কোনও পাকা সেতু। সেদিক থেকে জেলা ভাগ হওয়াকেও দুষছেন জলপাইগুড়ি জেলা থেকে বিচ্ছিন্ন হওয়া বর্তমান আলিপুরদুয়ার জেলার ভূখন্ডের সঙ্গে  থাকা দুই ভূখন্ডের মানুষ।

প্রসঙ্গত, ২০১৪ সালের ২৫ জুন অবিভক্ত জলপাইগুড়ি জেলা ভেঙ্গে আলিপুরদুয়ার জেলা তৈরি হলেও খাতায় কলমে মুন্ডাপাড়া ও শিসাপাড়ার প্রায় চারশো ভোটার জলপাইগুড়ি জেলাতেই রয়ে গিয়েছেন। ওই দুই ভূখন্ডের মানুষ প্রতিটি নির্বাচনে নদীর উপর বাঁশের সাকো কিংবা নৌকা দিয়ে পারাপার হয়েই ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন। তাঁদের অভিযোগ, জলপাইগুড়ি জেলার মূল ভূখন্ড থেকে আলাদা হওয়ায় গ্রীষ্ম, বর্ষা সব ঋতুতেই জেলাসদর কিংবা প্রশাসনিক কাজকর্মে যাতায়াতের জন্য ভরসা হয় নৌকা বা বাঁশের সাকো। সেখানকার রাস্তাঘাট পানীয় জল এমনকি ডুডুয়া ও সিঙ্গিমারি নদী পারাপারের সেতু নেই। প্রতি বর্ষায় দুই নদীর বন্যায় গৃহহীন থাকতে হয় বাসিন্দাদের। বহু দাবি, স্মারকলিপি দিলেও কেউ কথা রাখেননি।

- Advertisement -

মুন্ডাপাড়ার বাসিন্দা সুজন মুন্ডা, বিন্দু মুন্ডা প্রমুখরা বলেন, ‘জেলার মূল এলাকা থেকে আমরা বিচ্ছিন্ন তাই সেতুর দাবিতেই ভোট দিতে চাই। ভোটের দিনে পুরোনো নৌকা বের করে ভোট দিতে গিয়েছি।‘